স্ত্রীর লাশসহ ৩ বছরের শিশুকে কন্যাকে মর্গে রেখে স্বামীর পলায়ন স্ত্রীর লাশসহ ৩ বছরের শিশুকে কন্যাকে মর্গে রেখে স্বামীর পলায়ন - ajkerparibartan.com
স্ত্রীর লাশসহ ৩ বছরের শিশুকে কন্যাকে মর্গে রেখে স্বামীর পলায়ন

5:58 pm , August 1, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল শের-ই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতালের মর্গে স্ত্রীর লাশের পাশে ৩ বছরের কন্যা শিশুকে ফেলে পালিয়েছে পাষন্ড স্বামী মো. রফিকুল ইসলাম। স্বামী ও তার পূর্বের স্ত্রীসহ পরিবারের অত্যাচারে গৃহবধু রোজী আক্তার’র (২৪) মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ নিহতের পরিবার। এ ঘটনায় মামলা প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ লাশ সুরতহাল শেষে ময়না তদন্ত করেছে। এখনো কেউ আটক হয়নি।

নিহত রোজীর ছোট বোন রিমা আক্তার ও ভাই রাজু মোল্লা বলেন, ‘আমাদের বোন রোজীর সাথে গত ৪ বছর পূর্বে সৌদি প্রবাসী ও উজিরপুর উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের বাহেরঘাট এলাকার মৃত আব্দুল হক মোল্লার ছেলে রফিকুল ইসলামের সাথে বিয়ে হয়। তবে রফিকের প্রথম স্ত্রী দোলনা বেগমের সাথে ডির্ভোস হওয়ার পর রফিক রোজীকে বিয়ে করে। তাদের সংসারে একটি ৩ বছরের কন্যা সন্তান রয়েছে। চলতি বছরের ঈদের পর দেশে ফেরেন রফিক। কিন্তু সাবেক স্ত্রীর দোলনা, দোলনার ভাই জালাল, রফিকের ভাই সফিক ও শহিদুলের ষড়যন্ত্রে দেশে ফেরার ৩ দিনের মাথায় সে আবারো দোলনাকে হিল্লা বিয়ে করেন। এর পর একই ঘরে দুই বউ নিয়ে বসবাস শুরু করে রফিক। এ নিয়ে প্রতিদিনই ঝগড়া ও মারামারি হতো। মঙ্গরবার রাত ২টার দিকে রোজীর ভাই রাজুকে রফিক ফোন করে বলে রোজী অসুস্থ। রাতেই রাজু ও বোন রিমা উজিরপুরে যায়। পরে ফোনের মাধ্যমে জানতে পারে রোজীকে বরিশাল মেডিকেলে নিয়ে আসা হয়েছে। রাত সাড়ে ৩ টার দিকে রাজু ও রিমা মেডিকেলে এসে দেখেন লাশ ঘরের সামনে ভাগ্নি কান্না করছে। আর লাশ ঘরের মধ্যে রোজীর লাশ পরে আছে। আর কেউ নেই। লাশ ফেলে পালিয়েছে। রোজীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহৃ রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে আত্মহত্যা সাজানোর জন্য জোর করে রোজীর মুখে বিষ ঢালা হয়েছে। পরে ৯৯৯ এ কল করে অভিযোগ করলে পুলিশ সুরতহাল করে লাশ ময়না তদন্ত করেছে। ভোরে রোজীর লাশ তার বাবার বাড়ি একই উপজেলার ওটরা ইউনিয়নের ভবানিপুর গ্রামে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় রোজীর বাবার বাড়ির স্বজনরা রফিক, সফিক, শহিদুল, দোলনা ও দোলনার ভাই জালালের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবেন বলে জানিয়েছে। রোজীর ভাই রাজু মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, আমার দুলাভাই দেশে আসার পর থেকে কয়েকবার আমার বোনকে নিয়ে যেতে বলেছে। নতুবা তাকে মেরে ফেলবে বলে হুশিয়ারী দিয়েছে।

এব্যাপারে উজিরপুর থানার ওসি শিশির কুমার পাল বলেন, লাশ ময়না তদন্ত শেষে গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে। উজিরপুর থানায় অভিযোগ করলে আমরা আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT