ডিজিটাল নগরী চায় নবীন ভোটাররা ডিজিটাল নগরী চায় নবীন ভোটাররা - ajkerparibartan.com
ডিজিটাল নগরী চায় নবীন ভোটাররা

6:42 pm , July 15, 2018

সাঈদ পান্থ ॥ ডিজিটাল নগরীর বা তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর মেয়র চান নতুন ভোটাররা। নগর পিতার লড়াইয়ে তথ্য প্রযুক্তিতে পারদর্শী প্রার্থীর দিকে ঝুকবেন তারা। তাই নতুন ভোটারদের ভোট নিজের পক্ষে নিতে নানা প্রতিশ্রুতি ও ডিজিটাল নগরী গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন মেয়র প্রার্থীরা। তাদের চাওয়া চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে নিজের প্রচার-প্রচারনায় ডিজিটাল পদ্ধতি গ্রহন করেছেন আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। ইতিমধ্যে ইউটিউব, ফেসবুক, টুইটারের মাধ্যমে তরুন ভোটারদের মন জয় করার চেস্টা চালাচ্ছেন তিনি। বিএনপি’র ধানের শীষ প্রতীকের এ্যাড মজিবর রহমান সরোয়ার ও জাতীয় পার্টির ইকবাল হোসেন তাপসসহ অন্যান্য ভোটাররা নতুন ভোটারদের টানতে নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন।

জানা গেছে, বরিশাল সিটি নির্বাচনে ২ লক্ষ ৪০ হাজার ভোটারের মধ্যে প্রায় ৩১ হাজার ভোটার নতুন। যাদের বয়স ১৮ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। এদের নিয়েই অনেকটা জল্পনা কল্পনা শুরু করেছেন প্রার্থীরা। তাদের উপরই ভোটের অনেকটা হিসেব নিকেশ রয়েছে বলে জানা গেছে। বিএম কলেজের ছাত্র ও নগরীর নতুন ভোটার মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ‘আমরা এই নগরীকে আমাদের মত করে পেতে চাই। বিশেষ করে আইটি বিষয়ে আরো ডেভলপমেন্ট চাই। কলেজসহ বিভিন্ন গুরুত্বর্পূণ স্পটকে ফ্রি ওয়াইফাই জোনের আওতায় আনতে হবে। যাতে করে আমরা সহজেই বিশ্বের সাথে যুক্ত থাকতে পারি। ’ অমৃত লাল দে কলেজের শিক্ষার্থী নাসরিন জাহান জানান, ‘আমরা বরিশালকে একটি ডিজিটাল শহর হিসেবে দেখতে চাই। তাই নির্বাচনে নগরপিতা হিসেবে দক্ষ লোককে চাই। যিনি পারবেন এই নগরীতে নতুন করে সাজাতে। আমরা এমন একজন প্রার্থীকেই নির্বাচন করতে চাই। সরকারি বরিশাল কলেজের ছাত্র বায়েজিদ হাওলাদার বলেন, ‘আমি এবার নতুন ভোট দিবো। তাই যেনে শুনে দেখে ভোট দিতে চাই। আমি চাই এই নগরী হবে তরুনদের বাসযোগ্য একটি নগরী। তরুনরা যেন আইটি সুবিধা পায় সেটা আমি চাই। আমি চাই নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডে গড়ে উঠুক ফ্রি আইটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। যাতে করে সহজেই আমরা আইটি বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে পারি। আমাদের মধ্যে অনেকে রয়েছেন যারা অনলাইনে আয় করেন। আমরা চাই তরুনদের বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্ত করার জন্য এ বিষয়ে সবাইকে প্রশিক্ষণ দেয়া হোক। যেন ঘরে বসেই আমরা আয় করতে পারি। ’

বরিশাল সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনিত মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, নতুন বা তরুণ ভোটারদের জন্য ইতিমধ্যে আমি একটি মেসেজ দিয়ে দিয়েছি। তাতে বেশ সাড়া পেয়েছি ইতিমধ্যে। তাছাড়া তরুণ ভোটাররা আমাকে ভালোবাসে তাই তাদের ভোট আমি পাবো বলে বিশ্বাস করি। তাদের জন্য অনেক পরিকল্পনাও রয়েছে আমার। আমার প্রচার প্রচারণাও তথ্য প্রযুক্তি নির্ভার করা হচ্ছে। নগরীর বিভিন্ন পয়েন্ট তরুন ভোটারদের জন্য ওয়াইফাই সুবিদা প্রদান করা হবে। তাদের প্রত্যাশা পুরন আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিলাম। ’ নৌকা প্রতীকের আওয়ামী লীগ মনোনিত মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র মুখপাত্র বরিশাল মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাড. গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল বলেন, ‘যে ক’জন মেয়র প্রার্থী হয়েছেন তাদের মধ্যে আমাদের প্রার্থীই আইটিতে দক্ষ। সে আমেরিকায় আইটি’র উপর পড়াশোনা করেছেন। তার সকল কাজ আইটি নির্ভর। সেই পারবে তথ্য প্রযুক্তিতে আগামীর বরিশাল গড়তে। ’

ধানের শীষ প্রতীকের বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী এ্যাড. মজিবর রহমান সরোয়ার এর নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য আনোয়ারুল হক তারিন বলেন, ‘নতুন ৩১ হাজার ভোটারদের নিয়ে আমাদের অনেক পরিকল্পনা রয়েছে। অফিস আদালত কম্পিউটারাজ করা ও ওয়াইফাই করার বিষয়ে আমাদের প্রতিশ্রুতি রয়েছে। নতুনদের চাহিদা আমরা মাথায় রেখেছি। আইটি ও নারীদের নিয়েও আমাদের পরিকল্পনা রয়েছে। যা আমরাই বাস্তবায়ন করবো। ’

লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করা জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস বলেন, ‘আমি একজন আইটি প্রকৌশলী। আমি আমার দক্ষতাকে কাজে লাগাতে চাই। আমি বরিশালে একটি আইটি পার্ক স্থাপণ করতে চাই। যেখান থেকে দক্ষজনশক্তি তৈরি হবে। আর এই দক্ষ জনশক্তি দেশে ও বিদেশে দক্ষতার ভূমিকা পালন করবে। ’ আমি যদি মেয়র নির্বাচিত হই, তবে বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, বাস টার্মিনাল, লঞ্চ টার্মিনাল, পার্কসহ গুরুত্বপুন স্থানে ওয়াইফাই জোন করে দেব। এতে করে তরুন সমাজ আইটি সেক্টরে আরো দক্ষ হবে। ’

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT