অপপ্রচারের শিকার আওয়ামী লীগ নেতা শাহরিয়ার বাবু অপপ্রচারের শিকার আওয়ামী লীগ নেতা শাহরিয়ার বাবু - ajkerparibartan.com
অপপ্রচারের শিকার আওয়ামী লীগ নেতা শাহরিয়ার বাবু

6:12 pm , May 31, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজের এক সময়ের তুখোড় ছাত্রনেতা ও রায়পাশা কড়াপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার বাবু’র বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে একটি বিশেষ চক্র। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে রাজনৈতিক ও সামাজিক ভাবে ক্ষতি করার চেষ্টা চালাচ্ছে বিশেষ ওই মহলটি। যে ষড়যন্ত্রের শুরু হয়েছিলো রায়পাশা ইসলামিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন থেকে। নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পর থেকেই ওই মহলটি শাহরিয়ার বাবু ও তার লোকেদের বিরুদ্ধাচারন করে চলেছে। আর এই মহলটির সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগ রয়েছে নিজ দল আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও কতিপয় জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, ১৯৮৫ সালে জেলা ছাত্রলীগের সদস্য হওয়ার মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাথে সম্পৃক্ত হন। তার দীর্ঘ রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে বয়ে এসেছে অনেক সফলতা। ছাত্র রাজনীতিতে বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর ও মেধা ভিত্তিক রাজনীতির কারনে ১৯৯১ সালে বরিশালের ঐতিহ্যবাহী সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজ ছাত্র সংসদের জিএস নির্বাচিত হন। তবে তার আগেই ১৯৮৭ সালে হাতেম আলী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী এবং ১৯৮৮ সালে কলেজ ছাত্র সংসদের এজিএস, ১৯৮৯ সালে হাতেম আলী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন এক সময়ের মেধাবী ছাত্রনেতা শাহরিয়ার বাবু। শুধু তাই নয়, ১৯৯২ সালে বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক নির্বাচিত হন তিনি।

এদিকে বিরোধী আমলে সরকার দলীয়দের জুলুম-নির্যাতনের শিকার হন ত্যাগী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব শাহরিয়ার বাবু। তবুও বঙ্গবন্ধুর আর্দশ অনুসরন করে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখেন। পাশাপাশি নিজ কর্ম, গুণ আর বৈশিষ্টের মাধ্যমে জনমানুষের বন্ধুতে পরিনত হন শাহরিয়ার বাবু। কেননা যে কোন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, স্বেচ্ছাসেবামুলক কার্যক্রমে নিজেকে শামিল করে চলেছেন বিনা স্বার্থে। নিজ এলাকায় আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করতে বিসর্জন দিচ্ছেন নিজের ইচ্ছা-অনিচ্ছাকে। আর তাই ত্যাগ আর দক্ষতার উপহার স্বরুপ ২০১৫ সালে নগরীর রায়পাশা-কড়াপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে অধিষ্ঠিত হন। এটাই যেন তার বড় অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হয় রায়াপাশা-কড়াপুর ইউনিয়নের কিছু অংশের কাছে। তাই শাহরিয়ার বাবু’র সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও স্বেচ্ছাসেবীমুলক কার্যক্রমকেও নানান কৌশলে প্রশ্নবিদ্ধ করে তোলার চেষ্টা করছে মহলটি।

শাহরিয়ার বাবু জানিয়েছেন, চলতি বছরের ৫ মার্চ রায়পাশা ইসলামিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে শাহরিয়ার বাবু তার প্যানেল সহকারে নির্বাচিত হন। পরাজিত হন ৮ বছর সভাপতির দায়িত্ব পালন করা ব্যক্তি। শুধু একাই নন, প্যানেল সহকারে মাত্র ১১ ভাগ ভোট পেয়ে পরাজিত হন সাবেক সভাপতি। সেই থেকেই শুরু হয় বাবুর বিরুদ্ধে অপপ্রচার এবং একের পর এক ষড়যন্ত্র। কখনো মানুষের মুখে মুখে অপপ্রচার আবার কখনো নামকাওয়াস্তে প্রকাশিত হওয়া নি¤œসারির পত্রিকায় নানান মুখরোচক মিথ্যা তথ্য দিয়ে তার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করা হচ্ছে বাবুর বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, ওইসব পত্রিকা বিভিন্ন সরকারি দপ্তর এবং সাধারণ মানুষের কাছে পৌছে দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হয় তাকে।

জানাগেছে, বর্তমানে দেশ ব্যাপী প্রশাসনের মাদক বিরোধী অভিযান চলছে। সেই সুযোগটিও ছাড়েনি স্থানীয় চক্রটি। নামকাওয়াস্তে প্রকাশিত পত্রিকায় বিশেষ সুবিধা দিয়ে শাহরিয়ার বাবুকে বানিয়ে দেয়া হয়েছে মাদক ব্যবসায়ী। অথচ যার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে ধরা হচ্ছে নেয়া হচ্ছে না তার কোন মতামত বা বক্তব্য। তবে এলাকায় কান পাতলেই শোনা যায় শাহরিয়ার বাবুর বিরুদ্ধে যারা সংবাদ প্রকাশ কিংবা ষড়যন্ত্র করাচ্ছে তারাই মাদক ব্যবসায়ী এবং সেবীদের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে কাজ করছে। যে কারনে রায়পাশা-কড়াপুর এলাকার মাদক ব্যবসায়ীরা ঘুরে বেড়াচ্ছে প্রকাশ্যে। তাই ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে সুষ্ঠু তদন্ত এবং তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনে আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারক ও প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের কাছে জোর দাবী তুলেছেন আওয়ামী লীগ নেতা শাহরিয়ার বাবু।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT