নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ দুর্যোগপূর্ন আবহাওয়ার কারণে বরিশাল নদী বন্দর থেকে ঢাকা সহ অভ্যন্তরীন সকল রুটে নৌযান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। গতকাল শনিবার বিকাল ৫টা থেকে আবহাওয়া অধিদপ্তরে নির্দেশনা অনুযায়ী সকল প্রকার নৌযান চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অবশ্য এর পূর্বে শুক্রবার থেকেই বরিশাল নদী বন্দর থেকে ৬৫ ফুটের নিচে এমএল টাইপের নৌযান এবং স্পীড বোর্ট চলাচল বন্ধ ছিলো। বরিশাল নদী বন্দরের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা (নৌ-নিটা) বিভাগের উপ-পরিচালক আজমল হুদা সরকার মিঠু এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, দুর্যোগপূর্ন আবহাওয়ার কারণে দুরপাল্লার ও অভ্যন্তরীন সকল রুটে সকল প্রকার নৌযান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী গতকাল শনিবার বরিশাল নদী বন্দর থেকে ঢাকাগামী কোন লঞ্চ যাত্রা করেনি। এর আগে গত শুক্রবার থেকে গতকাল পর্যন্ত ৬৫ ফুটের নিচে এমএল টাইপ এবং স্পীড বোর্ড চলাচল বন্ধ ছিলো। বিশেষ করে গতকাল সকাল থেকে বরিশাল-ভোলা ও ইলিশা থেকে মজুচৌধুরীর হাট, উপকূলীয় এলাকা হাতিয়া, বেতুলিয়া ও রাঙ্গাবালি রুটে নৌযান চলাচল বন্ধ ছিলো।
সরেজমিনে নগরীর বরিশাল নদী বন্দরে দেখা গেছে, গতকাল সকল প্রকার নৌযান চলাচলে নির্দেশনা পাওয়ার পর পরই ঢাকা-বরিশাল রুটে চলাচলকারী বরিশাল নৌ বন্দরে যাত্রার অপেক্ষায় থাকা এমভি এ্যাডভেঞ্জার-১, পারাবত-১০ ও ১২, সুরভী-৭, কীর্তনখোলা-১ লঞ্চ থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি কেবিনের যাত্রীদের টিকেট ফেরৎ দেয়া হয়েছে। অবশ্য দুর্যোগপূর্ন আবহাওয়ার কারনে গতকাল বরিশাল-ঢাকা নৌ রুটের লঞ্চের ডেকের যাত্রীদের সংখ্যা তুলনামুলক কমছিলো।
নৌ-নিটার উপ-পরিচালক আজমল হুদা সরকার মিঠু বলেন, নৌ বন্দরে ২নং সতর্কতা এবং পায়রা বন্দর সহ দেশের সকল সমুদ্র বন্দরকে ৩ নং সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে। যে কোন দুর্ঘটনা এড়াতেই নৌযান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নৌ যান চলাচল বন্ধের নির্দেশ বলবৎ থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।