নানা স্বাদের ইফতার সামগ্রীর আয়োজন করেছে নগরীর অভিজাত হোটেল রেস্তোরাঁ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সিয়াম সাধনার মাস মাহে রমজান শুরু আজ থেকে। নগরীর সকল শ্রেনীর রোজাদারদের জন্য প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও নগরীর হোটেল রেস্তোরাঁগুলি রকমারি নামের ও মুখরোচক স্বাদের ইফতারির আয়োজন করেছে। নগরীর প্রায় সকল স্বনামধণ্য রেস্তোরাঁ সহ ছোট বড় খাবারের দোকানের প্রায় প্রত্যেকটিতেই আয়োজন করা করা হয়েছে নানা স্বাদের রকমারি ইফতারি। বিগত এক সপ্তাহ আগে থেকে বিভিন্ন স্থানে চলেছে ইফতার এর নানা আয়োজনের প্রস্তুতি। ক্রেতাদের মান সম্মত ও মুখরোচক স্বাদের প্রায় ৫০ এর অধিক নানা ধরনের ইফতার সামগ্রী সরবরাহের ব্যবস্থা সমেত এসকল বিক্রেতারা এখন পুরোপুরি প্রস্তুত। তাদের আশাবাদ এই নগরীর ভোজনবিলাসী বাসিন্দারা প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আনন্দের সাথে গ্রহন করবে এই রকমারি ইফতার সামগ্রী। এছাড়া এবছর তারা পাবে সাধ্যের মধ্যেই বেশ কিছু নতুন স্বাদের ইফতার।
নগরীর বিভিন্ন স্থান ঘুরে ও বিভিন্ন রেস্তোরাঁর সত্বাধীকারিদের সাথে ইফতার হাট এর আয়োজনের বিষয়ে আলাপ করে জানা গেছে, নগরীর প্রত্যেকটি ছোট বড় রেস্তোরাঁর নিজস্বতা নিয়ে তারা করেছে ইফতার হাট এর আয়োজন। তবে জাকজমকপূর্ন আয়োজনের দিক দিয়ে এগিয়ে রয়েছে হুপার্স মিউজিক ক্যাফে এর ইফতার মেন্যু। ভিন্ন স্বাদের ৩৫ রকমের ইফতার সামগ্রী, ৫ ধরনের বেভারেজ ও ৩ ধরনের ডেজার্ট আইটেম মিলিয়ে ৪৩ ধরনের খাবার থাকছে হুপার্স মিউজিক ক্যাফে এর ইফতার মেন্যুতে। এর মধ্যে সাধারন ইফতার সামগ্রির সাথে থাকছে হুপার্স স্পেশাল খাসির হালিম, স্পেসাল গরুর হালিম, স্পেশাল রেশমী জেলাপী, শাহী জেলাপী, চিকেন সাশলিক, ফিস কেক, প্রন অন টোস্ট, আফগানী কাবাব চিকেন, চিকেন গারলিক কাবাব, চিকেন রলি পপ, ল্যম্ব লেগ রোস্ট, হু পার্স চিড়া ভাজা, পটল কুমারের পটল ভাজা, আলুর দম সাথে লুচি ভাজা, ফয়েল চিকেন, পুরান ঢাকার গুগনী, কোয়েল পাখীর রোস্ট সাথে লুচি পরোটা, হুপার্স স্পেশাল লাবাং, দই বরা ইত্যাদি। তবে এসকল খাবারে সাথে বিশেষ আকর্ষন হিসেবে থাকছে ‘বরিশালের বড় মিয়ারা খায়’ নামের একটি খাবার। ১৫৫ টাকা থেকে ৫০০ টাকার মধ্যে মোট ৬ টি ইফতার এর প্যাকেজ ও রয়েছে হুপার্স মিউজিক ক্যাফের। প্রতিদিন বিকেল ৩ টা থেকে ৬ টা পর্যন্ত ক্যাফের নিচে জমবে ইফতারির এই হাট বলে জানান হুপার্স মিউজিক ক্যাফের স্বত্তাধিকারী আবু মাসুম ফয়সাল। তিনি পরিবর্তনকে জানান, বরিশালের বাসিন্দারা খাবারের বিষয়ে অনেকটাই রুচিশীল। তাই তারা মান সম্মত ও সেরা স্বাদের খাবারই বেছে নিবে। নগরবাসীকে মূলত ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের ইফতার সামগ্রীর সাথে পরিচয় করাতেই হুপার্সের এর এই ইফতার হাট এর আয়োজন। ক্রেতারা বিভিন্ন ধরনের ইফতার পেয়ে অবশ্যই সন্তুষ্ট হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। অন্যদিকে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ইফতার হাট এর জমজমাট আয়োজন রয়েছে নাজেম’স রেস্তোরাঁর। সাধারন ইফতার সামগ্রীর সাথে সাথে পুয়াপিঠা, চিকেন কাবাব, চিকেন পুলি, মোরগ পোলাউ, শাহি জর্দ্দা, মুরগী মোসাল্লাম, খাসির রান সহ মোট ২০ ধরনের মুখরোচক স্বাদের ইফতার মিলবে এখানে। নাজেম’স রেস্তোরাঁর স্বত্তাধিকারী ফরিদুর রহমান রেজা জানান, বিগত বছর গুলোর ন্যায় নাজেম’স ইফতার এবছরও ক্রেতাদের সেরা মানের ইফতার সামগ্রী সরবরাহ করবে। রমজানের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ক্রেতাদের পদচারনায় মুখরিত থাকবে তাদের ইফতার এর হাট বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন তিনি। একই সাথে সেরা মান ও স্বাদের খাবার সরবরাহ করে তারা ক্রেতাদের পুরোপুরি সন্তুষ্ট করার আশাবাদও ব্যক্ত করেন তিনি।
এছারাও হান্ডি কড়াই, রিভার ক্যাফে, গার্ডেন ইন রেস্তোরাঁ, বিএফজি, সিলভার স্পুন, দি কিচেন, হট প্লেট সহ প্রায় সকল রেস্তোরাঁগুলোতেই থাকবে ইফতার এর নানা আয়োজন। এসকল রেস্তোরাঁর প্রত্যেকেরই থাকবে নগরবাসীর জন্য বিশেষ বিশেষ ইফতার সামগ্রীর আয়োজন। সব মিলিয়ে এবছর বিগত বছরগুলোর তুলনায় অনেকটাই জমজমাট থাকবে ইফতারের বাজার।