২০ রমজান থেকে লঞ্চের অগ্রিম টিকিট

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ পবিত্র ঈদ উল ফিতরকে সামনে রেখে বরিশাল-ঢাকা নৌ রুটে যাত্রীবাহী লঞ্চের বিশেষ সার্ভিসের অগ্রিম টিকেট সরবরাহের কার্যক্রম হাতে নিয়েছেন লঞ্চ কর্তৃপক্ষ। ইতোমধ্যে লঞ্চের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেনির যাত্রীদের টিকেট সংগ্রহের আবেদন করার জন্য সময় নির্ধারন করে দিয়েছেন নৌ যান মালিক কর্তৃপক্ষ। আগামী ৩০ জুন থেকে আবেদন নেয়া হবে। আগামী ২০ রমজান থেকে অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু করবেন তারা।
বরিশাল নৌ বন্দর এবং লঞ্চের বিভিন্ন টিকেট কাউন্টারে নোটিশ বোর্ডে টানানো নোটিশ সূত্রে জানাগেছে, প্রতি বারের ন্যায় ঈদ উপলক্ষে বরিশাল-ঢাকা নৌ রুটে বিশেষ সার্ভিস দিবে বেসরকারী লঞ্চ মালিক কর্তৃপক্ষ। এজন্য লঞ্চের কেবিনের টিকেট নিতে আগ্রহী যাত্রীদের আগামী ৩০ জুনের মধ্যে সাদা কাগজে টিকেট পেতে লিখিত আবেদন করার জন্য আহবান জানানো হয়েছে। আবেদন করার জন্য সময় দেয়া হয়েছে মাত্র ২ জুলাই পর্যন্ত। আবেদনকারীদের মধ্যে যাচাই বছাই করে টিকেট প্রদান করা হবে। তবে এ ক্ষেত্রে লঞ্চের নিয়মিত যাত্রীদের প্রাধান্য দেয়া হবে। তবে নোটিশে কেবিনের অগ্রীম টিকেট বিক্রির সময় উল্লেখ করা হয়নি।
জানতে চাইলে সুরভী নেভিগেশনের পরিচালক রিয়াজুল কবির জানান, আমরা আগামী ৩০ জুন থেকে কেবিনের জন্য আবেদন গ্রহন করব। আবেদনকারীদের মধ্যে লটারী করে কেবিন দেয়া হবে। তবে যারা নিয়মিত যাত্রী তাদের ক্ষেত্রে কিছুটা ছাড় দেয়া হবে।
কীর্তনখোলা লঞ্চ মালিক মঞ্জুরুল আহসান ফেরদৌস বলেন, ঈদের পূর্বে ২০ রোজা থেকে বিশেষ সার্ভিসের টিকেট ছাড়া হতে পারে। তবে ঈদের কমপক্ষে তিন দিন পূর্বে থেকে বিশেষ সার্ভিস শুরু হবে।
অপরদিকে
বাংলাদেশ যাত্রীবাহী নৌ যান মালিক সমিতির সহ-সভাপতি ও সুন্দরবন নেভিগেশনের মালিক সাইদুর রহমান রিন্টু বলেন, ঈদ আসলে কেবিনের জন্য যাত্রীদের চাপ বাড়ে। এসময় যাত্রী বেশে দালাল এবং কালোবাজারীরাও বেপরোয়া হয়ে যায়। তাই আবেদনের মাধ্যমে কেবিনের টিকেট দেয়ার নিয়ম চালু করেছেন তারা।
তার পরেও আমরা লঞ্চ মালিকরা আগামী ২০ রোজার মধ্যে লঞ্চের বিশেষ সার্ভিসের বিষয়ে বৈঠক করব। তার পরে আগাম টিকেট বিক্রির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। তবে তবে ২০ রমজান থেকে কেবিনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু করার সম্ভাব্য সময় ভেবে রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।