স্বামী পরিচয়ে ধর্ষিতাকে হাসপাতালে ভর্তি !

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ স্বামী পরিচয়ে শেবাচিম হাসপাতালে ধর্ষিতাকে ভর্তি করেছে ধর্ষক নিজে। গতকাল দুপুরে ধর্ষিতাকে ভর্তি করা হয়। ভর্তির পরপরই ধর্ষণকারী পালিয়ে যায়। তবে ধর্ষকদের চাপের কারণে ধর্ষিতার পরিবার এ বিষয়ে মুখ খুলতে রাজি হননি। সূত্রে জানা গেছে, বাকেরগঞ্জের দূর্গাপুর উপজেলার এম.এ মালেক কলেজের বিএ শ্রেনীতে অধ্যায়নরত এক শিক্ষার্থী (২২)কে গতকাল দুপুরে স্থানীয় চার বখাটে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। উপর্যুপরি ধর্ষণের কারণে ধর্ষিতার প্রচুর রক্তক্ষরণের কারণে রাজিব নামে এক ধর্ষক নিজেকে ধর্ষিতার স্বামী পরিচয় দিয়ে শেবাচিম হাসপাতালে এসে ধর্ষিতাকে ভর্তি করে। বর্তমানে ওই ধর্ষিতা শেবাচিম হাসপাতালে গাইনী ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে। চিকিৎসক জানিয়েছে, ধর্ষিতার প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে এবং এখনও রক্তক্ষরণ হচ্ছে। তার অবস্থা আশংকাজনক। জানা গেছে, ধর্ষিতা তার নিজ বাড়ি দূর্গাপুর ১৩নং ইউনিয়ন থেকে বাকেরগঞ্জে কলেজের বই কিনতে আসার পথে ওই লম্পট ধর্ষকরা তার গতিরোধ করে নির্জনে নিয়ে উপর্যুপরি ধর্ষণ করে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতার মায়ের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি ধর্ষকদের ভয়ে কথা বলতে রাজি হননি। তবে তিনি জানিয়েছেন, ধর্ষকদের তিনি চিনতে পেরেছেন। তিনি আরও জানান, ধর্ষকরা স্থানীয় প্রভাবশালীর ছেলে। তাই তিনি এ বিষয়ে কিছু বলতে অপারগ।