স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে প্রশাসনের প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে নিহতদের স্মরণ করতে দিনটিতে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। গতকাল সোমবার নগরীর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল আলমের সভাপতিত্বে সভায় দিবসটি উপযাপনে নানা কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। ২৬ শে মার্চ সকাল ৬টায় নগরীর পুলিশ লাইন ৩১ বার তোপধ্বনি দিয়ে স্বাধীনতা কার্যক্রম শুরু করা হবে। সকাল সাড়ে ৬টায় বধ্যভূমির দিকে পদযাত্রা এবং বধ্যভূমি ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল ইসলামের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হবে। এছাড়াও সকাল ৮টায় পুলিশ, আনসার, ফায়ার সার্ভিসসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণে নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে শরীরচর্চা প্রদর্শনী ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। দুর্ঘটনার কবল থেকে মুক্তি পেতে আগুন নিয়ে প্রদর্শনীর উপর বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। সকাল ১১টায় জেলা পর্যায়ের সকল মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের গণসংবর্ধনা ও মধ্যাহ্ন ভোজ নগরীর মহিলা ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবে। অন্যদিকে একই সময়ে শিশু একাডেমির আয়োজনে শিশুদের চিত্রাংকন, দেশের গান, রচনা ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও সকাল সাড়ে ১১টায় অনুর্ধ্ব ১২ বছরের শিশুদের জন্য প্রামান্য চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। নগরীর বিউটি ও অভিরুচি সিনেমা হল কর্তৃপক্ষের কাছে চলচ্চিত্র প্রদর্শনের জন্য আহবান জানানো হয়। স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রচনা ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। ২৬শে মার্চ দুপুর ২টায় বরিশাল কারাগার, হাসপাতাল, শিশু সদনে উন্নত মানের খাবার সরবরাহ করা হবে। এছাড়াও বিভিন্ন মসজিদ ও উপাসনালয়ে শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে জনসাধারণের জন্য নৌবাহিনীর জাহাজ প্রদর্শনের জন্য উন্মুক্ত রাখা হবে ঐদিন দুপুর ২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত জাহাজটিতে জনসাধারণ প্রবেশ করতে পারবে। এছাড়াও শিশুদের জন্য প্লানেট পার্ককে উন্মুক্ত রাখার জন্য সিটি কর্পোরেশনের সচিবকে আহবান জানান হয়। এদিকে বিকাল ৩টায় মহিলাদের অংশগ্রহণে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা নগরীর সরকারি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে। অন্যদিকে বিকাল ৪টায় জেলা প্রশাসন একাদশ বনাম শহীদ মুক্তিযোদ্ধা এডিসি আজিজুল ইসলাম একাদশ প্রীতি ফুটবল ম্যাচ বঙ্গবন্ধু উদ্যানে অনুষ্ঠিত হবে। সন্ধ্যা ৭টায় ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নগরীর টাউন হলে অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও বদ্ধভূমিতে যাওয়ার পথটি মেরামত, পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা এবং অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য সিটি কর্পোরেশনের সচিবকে আহবান জানানো হয়েছে। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কাজী হোসনেআরা, সিটি কর্পোরেশন সচিব খন্দকার আনোয়ার হোসেন, সিভিল সার্জন ডাঃ এটিএম মিজানুর রহমান, জেলা শিক্ষা অফিসার লুৎফন নাহার আফরোজ, জেলা পরিষদ নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা, সদর উপজেলা ইউএনও আব্দুর রউফ মিয়া, এসএম ইকবাল, মুক্তিযোদ্ধা মোকলেচুর রহমান, এনায়েত হোসেন চৌধুরী, এমজি কবির ভুলু, তপংকর চক্রবর্তী, আক্কাস হোসেন প্রমুখ।