স্ত্রী নির্যাতনকারী এসআই ওয়ারেছ’র বিরুদ্ধে দ্বিতীয় স্ত্রীর জবানবন্দী

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ নির্যাতনের সত্যতা স্বীকার করে কাউনিয়া থানার এসআই ওয়ারেছের বিরুদ্ধে আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন দ্বিতীয় স্ত্রী হাবিবা। গতকার বুধবার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রফিকুল ইসলাম ২২ ধারায় এই জবানবন্দী রেকর্ড করেন। জবানবন্দী গ্রহণ শেষে হাবিবা আক্তার মারুফাকে তার মায়ের হেফাজতে দেয়া হয়। আদালত সূত্র জানায়, হাবিবা তার জবানবন্দীতে স্বীকার করেন ২০১৩ সালের ১৫ আগস্ট এসআই ওয়ারেছ তার পূর্বের বিয়ের কথা গোপন রেখে হাবিবাকে বিয়ে করে। পরে হাবিবাকে নিয়ে তার বাবার বাড়ীতে রেখে দেয় এবং ঐ বাড়িতে যাওয়া আসা করে। হাবিবার কোন প্রকার খরচ বহন না করে উল্টা ২ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে। পরিপ্রেক্ষিতে হাবিবা ওয়ারেছকে আলাদা করে দেয়া হয়। পরে হাবিবা ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে যৌতুকের দাবীতে পুনরায় মারধর করে বাচ্চা নষ্ট করার চেষ্টা করে যৌতুক লোভী ওয়ারেছ। পরবর্তীতে হাবিবা জানতে পারে ওয়ারেছের পূর্বেও বিয়ে ছিল এবং তার স্ত্রী ও তিন ছেলে আছে। আদালতের কাছে দেয়া এই জবানবন্দী শেষে তার মায়ের আবেদনে হাবিবাকে তার হেফাজতে দেয়া হয়। হাবিবা এখনও ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানা যায়। উল্লেখ্য মঙ্গলবার হাবিবার মা বাদী হয়ে এসআই ওয়ারেছের বিরুদ্ধে কাউনিয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন অপরাধ দমন আইনে মামলা করে। এর পূর্বেই ওয়ারেছকে এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাময়িক বরখাস্ত করা হয় বলেও জানাগেছে।