সাদিক আব্দুল্লাহ’র হস্তক্ষেপে আট দিন পরে বিদ্যুৎ সংযোগ পেলো রসুলপুরবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র হস্তক্ষেপে টানা আট দিন পরে বিদ্যুৎ এর আলো জ্বেলেছে নগরীর সিট মহল খ্যাত রসুলপুর চর কলোনিতে। বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দেয়ায় গত আট দিন বিদ্যুতের আলোবিহিন অন্ধকারে কাটাতে হয়েছে ওই এলাকার ৪শ পরিবারকে। সর্বশেষ গতকাল সোমবার সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র নির্দেশে বকেয়া বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ এর ব্যবস্থা করে দিয়েছেন মহানগর আওয়ামীলীগের শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক এবং মৎস্য আড়ৎদার মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক নিরব হোসেন টুটুল। এতে করে রসুলপুর এলাকার মানুষের দুর্ভোগ লাঘব হয়েছে।
আওয়ামী লীগ নেতা নিরব হোসেন টুটুল জানান, নগরীর ৯ নং ওয়ার্ডের আওতায় কীর্তণখোলা নদীর তীরবর্তী রসুলপুর চর কলোনিতে অসহায় এবং দরিদ্র মানুষের বসবাস। একটি মিটারের মাধ্যমে কলোনীর বাসিন্দারের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সরবরাহ দিয়ে আসছে। ওই বিদ্যুৎ এর আলোয় শিক্ষার্থীরা লেখাপড়া সহ অন্যান্য কাজ করতো। কিন্তু গত দুই মাস ধরে কলোনীবাসি তাদের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে পারছিলেন না। মোটা অংকের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় বিদ্যুৎ বিভাগ ওই এলাকার একমাত্র মিটারটির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এর ফলে বিদ্যুৎ বিহীন গত ৮দিন অন্ধকারে ভোগান্তিতে ছিল কলোনির প্রায় চারশ পরিবার। কুপির আলো, হেরিকেন এবং মোমবাতিই ছিলো তাদের একমাত্র ভরসা। তাছাড়া গত ৮দিন যাবৎ বিদ্যুৎ না থাকায় সিমাহিন ভোগান্তির শিকার হতে হয় পরিবারগুলোকে।
এর পরিপ্রেক্ষিতে ভোগান্তির শিকার হওয়া এলাকার সাধারন মানুষ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র স্মরনাপন্ন হন। বিদ্যুৎ এর আলো ফিরে পেতে তার কাছে আকুতি জানান অসহায় মানুষগুলো। তাদের দুঃখ দুর্দশা লাঘবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা নিরব হোসেন টুটুলকে দায়িত্ব দেন সাদিক আব্দুল্লাহ। পরে নিরব হোসেন টুটুল চারশ পরিবারের কাছ থেকে সাধ্যমত চাঁদা তুলে এবং তিনি নিজেই অবশিষ্ট বড় অঙ্কের টাকার যোগান দিয়ে কলোনিতে বিদ্যুৎ সংযোগ এর ব্যবস্থা করে দেন।
নিরব হোসেন টুটুল বলেন, সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র নির্দেশ অনুযায়ী তিনি এক মাসের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে পুনরায় বিদ্যুৎ সংযোগ এর ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। তবে এখনো এক মাসের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রয়েছে। যা কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করার ব্যবস্থা করে দেয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।