সাদিক আবদুল্লাহ’র নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করলেন ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র নেতৃত্ব দেখে অভিভুত হলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক, সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের-এমপি। বৃষ্টির মধ্যেও সাদিক আবদুল্লাহ’র আহ্বানে সাঁড়া দিয়ে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অনুষ্ঠানে হাজার হাজার নারী-পুরুষের ঢল তাকে মুগ্ধ করেছে। আর তাই মহানগরের এই তরুন নেতার সফল নেতৃত্বের প্রশংসাও করেছেন কেন্দ্রীয় এই জ্যেষ্ঠ নেতা। পাশাপাশি হাজার হাজার নেতা-কর্মীর দাবীর প্রেক্ষিতে সাদিক আবদুল্লাহকে বরিশাল সিটি মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার বিষয়ে মনোনয়ন বোর্ডে সুপারিশ করবেন বলেও আশ্বস্ত করেন মন্ত্রী। এর পূর্বে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচির আয়োজন করে মহানগর আওয়ামী লীগ। গতকাল বৃহস্পতিবার এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক, যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের-এমপি। সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রমের আয়োজনে মহানগর আওয়ামী লীগের নাম থাকলেও অনুষ্ঠান সাফল্য মন্ডিত করে তুলতে যার অবদান ছিলো সবচেয়ে বেশি তিনি হলেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক

আবদুল্লাহ। তার ডাকে সাড়া দিয়েই হাজার হাজার নেতা-কর্মী বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা করে মিছিল সহকারে আসতে থাকেন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানস্থলে। দুপুর থেকে প্রবল বর্ষন হলেও তা উপেক্ষা করে শুধুমাত্র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র আহ্বানে সাড়া দিয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাজার হাজার নেতাকর্মী আসতে থাকেন। সভা শুরুর পূর্বেই সদর রোডের কাকলির মোড় থেকে মুক্তমঞ্চ পর্যন্ত দেখা যায় নারী-পুরুষের মিছিল। তাছাড়া নগরীর প্রত্যেকটি ওয়ার্ড থেকেই বাঁধ ভাঙ্গা জোয়ারের মত করে আসতে থাকে একের পর এক মিছিল। যে মিছিল থেকে শুধুমাত্র আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ-এমপি এবং সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র পক্ষ থেকে আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে শুভেচ্ছা জানিয়ে শ্লোগান প্রতিধ্বনিত হতে থাকে। শুধু তাই নয়, আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সহ অঙ্গ সংগঠনের একের পর এক মিছিল দেখে মনে হয় যেন মিছিলের প্রতিযোগিতা চলছে। বিশাল বিশাল মিছিল নিয়ে অনুষ্ঠান স্থলে আসতে থাকেন তারা। প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে যে কটি মিছিল এসেছে তার মধ্যে সব থেকে বৃহৎ মিছিল ছিলো মহানগর ছাত্রলীগ নেতা গোলাম মোস্তফা অনিক ওরফে অনিক সেরনিয়াবাত এর মিছিলটি। এছাড়াও ছাত্রলীগ নেতা রইচ আহম্মেদ মান্নার নেতৃত্বে আসা মিছিলটিও ছিল দেখার মত। তবে প্রত্যেকটি মিছিলই ছিলো যেন এক একটি জনস্রোত।

এদিকে সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ আহ্বানে একের পর এক শৃঙ্খলাপূর্ণ মিছিল দেখে বিস্ময়ে হতবাক হন স্বয়ং আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের-এমপি। যা তিনি নিজেই জনসম্মুখে প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, আমি ভেবেছিলাম সদস্য সংগ্রহ এবং নবায়ন অনুষ্ঠানে বেশি হলে ৫শ থেকে ৬শ লোক হবে। কারন এটা কোন জনসভা নয়। কিন্তু বাস্তবে যা দেখলাম, তা একটি জনসভার থেকেও বেশি। কয়েক হাজার লোকের সমাগম হয়েছে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অনুষ্ঠানে। শুধু তাই, অনুষ্ঠানে যারা এসেছেন তারা সবাই গভীর আগ্রহ নিয়ে অনুষ্ঠানের শেষ পর্যন্ত ছিলেন। এটা কোন দক্ষ নেতৃত্ব ছাড়া সম্ভব নয়।

মন্ত্রী বলেন, এমন জনস্রোত প্রমান করে যে বরিশাল বিএনপি নয়, আওয়ামী লীগের দুর্গ। আর এটি সকলকে বুঝিয়ে দিতে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এবং তার সুযোগ্য জ্যেষ্ঠ পুত্র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র নেতৃত্বে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। পাশাপাশি সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রমের প্রতি গুরুত্ব এবং নেতা কর্মীদের এবিষয়টি নিয়ে দায়িত্ব দিয়ে মন্ত্রী বলেছেন, নারী সদস্যদের প্রতি বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। তাছাড়া মাদকাসক্ত এবং ইয়াবা সেবনকারীদের আওয়ামী লীগের সদস্য করা যাবে না। তারা ভালো হয়ে আসতে পারলে তাদের সদস্য করা হবে ঘোষনা দিয়েছেন মন্ত্রী।