সহকর্মীর মুক্তির দাবীতে শেবাচিম অধ্যক্ষকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ সহকর্মীর মুক্তির দাবীতে শের-ই-বাংলা মেডিকেল অধ্যক্ষকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ করেছে কর্মচারীরা। গতকাল রবিবার সকাল ১০টা থেকে ২ ঘন্টা কর্মবিরোতীর পাশাপাশি অধ্যক্ষকে অবরুদ্ধ করে রাখে তারা।
এদিকে কর্মচারীদের আন্দোলনের মুখি চুরির ঘটনায় গ্রেফতারকৃত চতুর্থ শ্রেনী কর্মচারী নয়ন হোসেন হানিফ ওরফে নয়ার জামিনের বিষয়ে জরুরী সভা করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এসময় তারা চুরি যাওয়া ঘরের মালিক ডা. মাছুম আহম্মেদ এর সাথে কথা বলেছেন। তবে তিনি আইনের উর্ধ্বে গিয়ে কিছু করতে পারবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন।
শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সরকারী কর্মচারী কল্যান সমিতির সাধারন সম্পাদক সাহেব আলী জানান, ডা. মাছুম আহম্মেদ এর বাসায় চুরির ঘটনায় তাদের সহকর্মী নৈশ্য প্রহরী নয়ন ওরফে নয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রথমত সন্দেহজনক ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হলেও পরবর্তীতে মাসুম আহম্মেদ এর দায়েরকৃত চুরি মামলায় নয়াকে আদালতে প্রেরন করা হয়। এর পর থেকে তিনি জেল হাজতে রয়েছে।
এই ঘটনার পর থেকেই মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের কর্মচারীরা নায়ার মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ করে আসছে। প্রথম বিক্ষোভ এবং পরে ১ ঘন্টা ও পর্যায়ক্রমে ২ ঘন্টা করে কর্ম বিরোতি পালন করে আসছে। তার পেরেও ইতোপূর্বে জামিন আবেদন করা সত্যেও নয়ার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেনি আদালত।
সাহেব আলী আরো জানান, আগামী কাল মঙ্গলবার পূনরায় নয়ার জামিন আবেদন করা হবে। ধার্য্য তারিখে তাকে জামিনে মুক্তি করার জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষের তেমন কোন সড়া নেই। সে জন্য গতকাল রবিবার সকাল ১০টার দিকে তারা কর্মবিরতি শুরু করেন। সেই সাথে কলেজ অধ্যক্ষকে তার কক্ষের মধ্যে অবরুদ্ধ রাখেন বিক্ষোভকারীরা। পরে আন্দোলনের মুখে কলেজ কর্তৃপক্ষ জরুরী সভা ডাকেন। এমনকি সভায় নয়ার জামিনের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের সিদ্ধান্ত নিলেও সে বিষয়ে জানাতে অপরাগতা প্রকাশ করেছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।