সন্ত্রাস নয়, শান্তি চাই – শঙ্কামুক্ত জীবন চাই

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস প্রতিরোধে সারাদেশের ন্যায় বরিশালেও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়সহ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অন্তুর্ভূক্ত সকল কলেজ এবং বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১০ টায় “সন্ত্রাস নয়, শান্তি চাই- শঙ্কামুক্ত জীবন চাই” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গ্লোবাল ইউনিভাসির্টি বাংলাদেশের আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সামনে জঙ্গিবাদ বিরোধী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক তপন কুমার বল, রেজিস্ট্রার মো. রেজাউল করীম সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

সকাল ১১ টায় “আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে জঙ্গিবাদ ও জঙ্গি তৎপরতার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এসএম ইমামুল হক’র নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ টি অনুষদের অধীনে ১৮ টি বিভাগের সকল শিক্ষার্থী, শিক্ষকমন্ডলী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ এ কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

মানববন্ধন শেষে ক্যাম্পাসে জঙ্গিবাদ ও জঙ্গি তৎপরতার বিরুদ্ধে এক সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এসএম ইমামুল হক সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, আজকের এই দীর্ঘ মানববন্ধন এটাই প্রমাণ করে বাঙালীরা জঙ্গিবাদ ও জঙ্গি তৎপরতার বিরুদ্ধে জেগে উঠেছে। ধর্মের নামে কোন ধরনের সহিংসতা ও অপতৎপরতা বাঙালিরা মেনে নেবে না। বহুমাত্রিক শিক্ষাব্যবস্থার কারণে শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি থেকে অনেকটাই দূরে সরে গেছে। একটি এক ধারার শিক্ষা ব্যবস্থা প্রবর্তনের জন্য তিনি সরকারের প্রতি আহবান জানান।

এসময় তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে এবং তাঁর দক্ষ ও যোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে অচিরেই বাংলাদেশ থেকে জঙ্গিবাদের মূল উৎপাটন সম্ভবপর হবে। আমরা যেভাবে ১৯৭১ সালে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে যুদ্ধ করে প্রিয় মাতৃভূমিকে স্বাধীন করেছি। ঠিক তেমনি সাম্প্রতিক সময়ের জঙ্গিবাদ ও জঙ্গি তৎপরতাকেও একই ভাবে মোকাবেলা করে বাংলাদেশের চলমান অগ্রযাত্রার ধারা অব্যাহত রাখতে সকলের প্রতি আহবান জানান তিনি।

“জয় বাংলা” কে প্রয়োজনে আইন করে জাতীয় শ্লোগান করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম ইমামুল হক প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানান। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার, রেজিস্ট্রার, প্রক্টর, শিক্ষক সমিতির সভাপতি, অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি, বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদের সভাপতি, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’ ৭১ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি (দক্ষিন) শিক্ষার্থীদের মধ্যে হতে ৩ জন শিক্ষার্থী এবং ৩য় ও ৪র্থ শ্রেনী কর্মচারী কল্যান পরিষদের সভাপতিবৃন্দ। সমাবেশটি পরিচালনা করেন বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট মো. আব্দুল কাইয়ুম।