সদর গার্লস স্কুল ছাত্রী অপহরণের মামলায় ৩ জন জেলে

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ নগরীতে শিশু কন্যাকে অপহরণের মামলায় এজাহারনামীয় এক আসামীসহ ৩ জনকে জেলে পাঠিয়েছে আদালত। একই সাথে উদ্ধারকৃত শিশু সিনথিয়া (১১ কে সেইফ হোমে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গ্রেফতারের পর গতকাল বুধবার আসামীদের চীফ মেট্রোপলিটন আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় আদালতের বিচারক মোঃ আলী হোসাইন এ নির্দেশ দেন। জেলে যাওয়া আসামীরা হলো নতুনবাজার বন বিভাগের কর্মরত জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে রাসেল, বগুড়া রোডের গাজী ভবনের বাসিন্দা গৌরাঙ্গ চন্দ্র রায়ের ছেলে হৃদয় চন্দ্র রায় ও হাসপাতাল রোডের বাসিন্দা মোঃ নেয়ামত উল্লাহর ছেলে মারুফ হোসেন। আদালতে সূত্রে জানাগেছে, সিনথিয়া সদর গার্লস স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। স্কুলে যাওয়া আসার পথে রাসেল প্রায়ই তাকে উত্যক্ত করত। এতে নিষেধ করায় রাসেল ক্ষিপ্ত হয়। এর জের ধরে ২৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টায় নতুনবাজার থেকে ফেরার পথে মাইক্রোবাসযোগে সিনথিয়াকে অপহরণ করে রাসেল ও তার সহযোগিতরা। এ ঘটনায় সিনথিয়ার মা রওশন জাহান শাওন বাদি হয়ে পরের দিন রাসেল ও তার পরিবারের ৪ জন সহ অজ্ঞাত ২/৩ জনকে অভিযুক্ত করে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা করে। অপরদিকে জেলে যাওয়া রাসেল ও তা সহযোগিরা জানায়, ৩ বছর পূর্বে থেকেই একই এলাকার বাসিন্দা সিনথিয়ার সাথে রাসেলের প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। গত ২৩ ডিসেম্বর সিনথিয়া প্রেমের টানে স্ব ইচ্ছায় রাসেলের সাথে তার বন্ধুর মেসে ওঠে। পরবর্তীতে ২৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় তাদেরকে ওই মেস থেকে উদ্ধার করে র‌্যাব-৮ এর একটি দল। পরে তাদের কোতয়ালি মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়।