শ্রদ্ধায় স্মরণ জাতির জনক

রুবেল খান॥ বিন¤্র শ্রদ্ধা আর অজ¯্র ভালোবাসার মধ্যে দিয়ে বরিশালে পালন করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪০ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস। ১৪ই আগস্ট রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে শুরু হয় বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের কর্মসূচী। এর পর গতকাল সকাল থেকে অঝরধারার বৃষ্টি উপেক্ষা করে নেতা-কর্মীরা কাক ভেজা হয়ে প্রতিটি কর্মসূচীতে স্বতঃস্ফুর্ত ভাবে অংশ গ্রহন করেন। এছাড়াও নগরীর ৩০টি ওয়ার্ড এবং জেলার প্রতিটি উপজেলায় যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে দিবসটি পালিত হয়েছে।
কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১৪ই আগস্ট রাত ১২টা বেজে ১ মিনিট থেকে নগরীর কালিবাড়ি রোডে শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত’র বাস ভবনে কোরআন খানি শুরু হয়। এর পর গতকাল শনিবার শোক দিবসের দিন সকাল ৬টায় সদর রোডের শহীদ সোহেল চত্ত্বর সংলগ্ন দলীয় আ’লীগের দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার পাশাপাশি সাংগঠনিক এবং কালো পতাকা উত্তোলন করে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ। এর পর পরই মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সকাল থেকে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত দলীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু সহ শাহাদাৎ বরণকারী পরিবারের সদস্যদের রূহের শান্তি কামনায় কোরআন খানী অনুষ্ঠিত হয়।
এদিকে সকাল ৮টায় বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট’র উদ্যোগে অশ্বিনী কুমার হল চত্ত্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত’র প্রতিকৃতি স্থাপন করা হয়। এরপর সেখানে সর্ব প্রথম পুষ্পার্ঘ অর্পন করেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগ। এসময় উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. তালুকদার মো. ইউনুস-এমপি, সাবেক সহ-সভাপতি মো. হোসেন চৌধুরী, সাবেক প্রচার সম্পাদক সৈয়দ আনিছুর রহমান প্রমুখ।
এরপর বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের বৃহত্ত্বর একটি অংশের পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা ও যুবলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। এসময় তার সাথে ছিলেন বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড এবং চারটি সাংগঠনিক থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি-সম্পাদক এবং আহ্বায়ক ও যুগ্ম আহ্বায়করা।
এরপর মহানগর আওয়ামীলীগের অপর অংশ পুষ্পমাল্য অর্পন করেন। বরিশাল সদর আসনের এমপি জেবুন্নেছা আফরোজ এবং নগর আ’লীগের সাধারন সম্পাদক আফজালুল করিম’র নেতৃত্বে পুষ্পার্ঘ অর্পন কালে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু এবং নগর শ্রমিকলীগের সভাপতি আফতাব হোসেন সহ আরো অনেকে।
এরপর পরই মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের অঙ্গ সহযোগী সংগঠন যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ, বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ, বাস্তহারা লীগ, পর্যটন লীগ, সাংস্কৃতি সংগঠন সমন্বয় পরিষদ, বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতি, বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড সহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে নেতা-কর্মীরা বঙ্গবন্ধু ও শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত’র প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পন করেন।
এছাড়া সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগ এবং মহানগর আওয়ামী লীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা শহীদ আব্দুর মঈন খান রিন্টু’র কবর জিয়ারত করেন।
এদিকে বেলা ১১টার দিকে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক বিশাল শোক র‌্যালী বের করেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাড. তালুকদার মো. ইউনুস-এমপি’র নেতৃত্বে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হওয়া শোক র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
অপরদিকে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র নেতৃত্বে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে মহানগর আ’লীগের বিশাল এক শোক র‌্যালী বের করা হয়। শোকের প্রতীক কলো পতাকা এবং কালো ব্যাচ হাতে বিশাল র‌্যালীটি মুষল ধারে বৃষ্টি উপেক্ষা করে কাক ভেজা হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ ছাড়াও কাউন্সিলর গাজী নঈমুল ইসলাম লিটু, যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম খোকন, ছাত্রলীগ জেলা সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন আহম্মেদ সুমন সহ নগরীর ৩০টি ওয়ার্ড এবং চারটি থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সহ অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের সহ¯্রাধিক নেতা-কর্মী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র নেতৃত্বে শোক র‌্যালীতে অংশ নেয়।
এছাড়াও অ্যাড. রফিকুল ইসলাম খোকন’র নেতৃত্বে বরিশাল মহানগর যুবলীগের ব্যানারে একটি শোক র‌্যালী শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র র‌্যালীর সাথে যুক্ত হন। তবে এর পূর্বে নগর আ’লীগ নেতা সাদিক আব্দুল্লাহ’র নেতৃত্বে শোক র‌্যালীতে অংশগ্রহনের লক্ষ্যে বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে আ’লীগের শত শত নেতা-কর্মীরা শোক র‌্যালী সহকারে যোগ দেন।
অপরদিকে সদর আসনের এমপি জেবুন্নেছা আফরোজ এবং নগর আ’লীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাড. আফজালুল করিম’র নেতৃত্বে আরো একটি র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীতে উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু, শ্রমিক লীগ সভাপতি আফতাব হোসেন সহ ছাত্রলীগ, যুবলীগ এবং শ্রমিক লীগের নেতা-কর্মীরা অংশ নেয়।
এদিকে বিকাল ৪টায় জেলা আ’লীগের নেতৃত্বে শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত এর বাস ভবনে মহিলা আওয়ামী লীগ ও মহিলা যুবলীগের আলোচনা সভা ও মিলাদ- মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে দুপুর ২টায় সকল মসজিদ, মন্দির, গীর্জ ও পেগোডায় ১৫ই আগস্টের শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া ও প্রার্থনা করা হয়েছে। বিকাল ৫টায় শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত এর সেরালস্থ বাস ভবনে জেলা কৃষক লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও মিলাদ-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
সন্ধ্যায় নগরীর অশ্বিনী কুমার হলে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতি জোটের আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া মহানগর আওয়ামী লীগের একাংশের উদ্যোগে বাদ মাগরিব দলীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু সহ নিহত সকল শহীদদের স্মরণে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এদিকে সন্ধ্যায় নগরীর ১৯, ২০ ও ২১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগ নেতা কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এসএম জাকির হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জুবায়ের আব্দুল্লাহ জিন্নাহ, আতিক উল্লাহ মুনিম প্রমুখ। দোয়া-মোনাজাত শেষে ওয়ার্ডের দরিদ্র ও ইয়াতিম-মিস্কিনদের মাঝে খিচুরী বিতরণ করা হয়।
এদিকে শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে নগরীর ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। এতে সভাপতিত্ব করেন ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন খান বাদশা মিয়া। সভা পরিচালনা করেন ওয়ার্ডের সাধারন সম্পাদক মো. আমির হোসেন বিশ্বাস। এছাড়াও ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিভিন্ন মসজিদে মিলাদ-মাহফিল ও দোয়া-মোনাজাত এবং কাঙ্গালী ভোজ অনুষ্ঠিত হয়।
১৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শোক দিবস পালন করা হয়েছে। সকালে বঙ্গবন্ধুর ও আব্দুর রব সেরনিয়াবাত’র প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পন, কালো ব্যাচ ধারন, কোরআন খানী ও বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচার করা হয়। এছাড়া সকাল ১১টায় মহানগর আ’লীগের শোক র‌্যালীতে অংশ গ্রহণ, দুপুরে ল’ কলেজ চত্বরে নগর আ’লীগ নেতা সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র মাধ্যমে গরিব ও দুস্থদের মাঝে খিচুরি বিতরণ করা হয়। এছাড়া সন্ধ্যায় ওয়ার্ডের প্রতিটি মসজিদ, মন্দির এবং ধর্মীও উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।
সায়েস্তাবাদ ইউনিয়ন আ’লীগের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত এবং দলীয় ও কালো পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়। ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে মিলাদ-মাহফিল ও দোয়া-মোনাজাতের পাশাপাশি কাঙ্গালী ভোজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইউনিয়ন আ’লীগের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
১৪ নং ওয়ার্ডের খালপাড় সড়ক মিরাবাড়ির পুল এলাকায় শোক দিবস পালন করা হয়। ওয়ার্ড যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি তাজ উদ্দিন তুহিন এবং ওয়ার্ড আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে তিন দিন ব্যাপী শোক দিবসের কর্মসূচি পালিত হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল শোক দিবসের দিন বঙ্গবন্ধুর স্মরনে দেয়াল লিখন, বঙ্গবন্ধুর জীবনীর ভিডিও চিত্র প্রদর্শন, ১৪ আগস্ট রাত ১২.১ মিনিটে প্রদীপ প্রজ্বলন ও পুষ্পার্ঘ অর্পন, দিন ব্যাপী কোরআন খানী, হামদ ও নাত এবং বঙ্গবন্ধু’র ঐতিহাসিক ভাষণ প্রচার করা হয়। এছাড়াও শহীদদের রুহের মাগফেরাত কমানায় বাদ আসর মিরাবাড়ি পুল সংলগ্ন বাইতুন নূর জামে মসজিদে দোয়া-মোনাজত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন হেমায়েত উদ্দিন হাওলাদার, ওয়াহিদ সবুজ, আওলাদ হোসেন আলো, যুবলীগ নেতা হারুনর রশিদ, তৌহিদুর রহমান ছাবিদ, জাহিদ সোহেন রিয়াজ, ফাইজুল আমিন মাসুম, ছাত্রলীগ নেতা আলম, শাওন, যুবলীগ নেতা মোর্শেদ, নাসির, রুবেল, খান জুবলী, শ্রমিক লীগ নেতা শাহ আলম প্রমুখ।