শেবাচিম হাসপাতালের সহকারী রেজিষ্ট্রারকে লাঞ্ছিত

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ কক্ষ বরাদ্দ নিয়ে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী রেজিষ্ট্রারকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শনিবার বেলা ১২টার দিকে শেবাচিম হাসপাতালে পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে তাকে লাঞ্চিত করেছে ইন্টার্নি ডক্টর্স এ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ। শিক্ষানবিশ চিকিৎসকদের লাঞ্চনার শিকার সার্জারী বিভাগের সহকারী রেজিষ্ট্রার ডা. এসএম রমিজ আহম্মেদ ভয়ে বাধ্য হয়ে কক্ষ ছেড়ে দিয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ছাত্র কল্যান পরিষদের সাবেক ভিপি ডা. এসএম সায়েম দীর্ঘ দিন পূর্বে ইন্টার্নি শেষ করেছেন। বিএমএ জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাবেক এই ছাত্র নেতা তার নিজ এলাকা বাউফলের একটি সরকারী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মেডিকেল অফিসার পদে কর্মরত রয়েছেন। কিন্তু এর পরেও তিনি শেবাচিম হাসপাতালের ইন্টার্নি ডক্টর্স হোস্টেলের চতুর্থ তলার কক্ষ দখলে রেখেছেন। তিনি নগরীতে না থাকলে মাঝে মধ্যে এসে থাকেন। ডা. সায়েমের এক সময়ের ঘনিষ্ট বন্ধু ডা. এসএম রমিজ আহম্মেদ শেবাচিম হাসপাতালের সার্জারী-২ ইউনিটে সহকারী রেজিষ্ট্রার হিসেবে যোগদান করেন। তিনি ইন্টার্নি হোস্টেলের চতুর্থ তলায় সায়েমে কক্ষ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বরাদ্দ নেয়। বিষয়টি জানতে পেরে ডা. সায়েম এর সমর্থক ইন্টার্নি ডক্টর এ্যাসোশিয়েশনের সভাপতি প্রিন্স মজুমদার সহ তার সহযোগিরা ডা. রমিজ আহম্মেদকে কক্ষ বরাদ্দ নিতে বাধা সৃষ্টি করে। এমনকি হাসপাতালের প্রশাসনিক বিভাগে পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে তাকে লাঞ্ছিত করে। এসব ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন সহকারী রেজিষ্ট্রার ডা. এসএম রমিজ আহম্মেদ।