শেবাচিম হাসপাতালের কর্মস্থলে অনুপস্থিত ৭ চিকিৎসককে কারন দর্শানোর নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকার অভিযোগে শেবাচিম হাসপাতালের ৭ চিকিৎসককে কারন দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার হাসপাতাল পরিচালক ডা. মু. কামরুল হাসান সেলিম ওই নোটিশ দেন। একই সাথে আগামী ২ দিনের মধ্যে কারন দর্শানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নোটিশ প্রাপ্তরা হলো- রক্ত পরিসঞ্চালন কেন্দ্রের ক্লিনিক্যাল প্যাথালজিষ্ট ডা. মলয় কৃষ্ণ বড়াল, প্যাথালজি বিভাগের ক্লিনিক্যাল প্যাথালজিষ্ট ডা. ওয়াহিদুজ্জামান ও ডা. অজয় কুমার বিশ্বাস, কার্ডিওলজী বিভাগের ডা. আব্দুল মান্নান, রেজিওলজী বিভাগের ডা. হাওয়া আক্তার, ডা. বর্ণালী দেবনাথ এবং ডা. শিরিন সাবিহা।
হাসপাতালের প্রশাসনিক বিভাগ সূত্রে জানাগেছে, দীর্ঘ দিন ধরে শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসকরা সময় মত কর্মস্থলে উপস্থিত থাকে না। এমনকি নির্ধারিত সময়ের পূর্বে কর্মস্থল ত্যাগ করে। কিছু চিকিৎসক দায়িত্ব চলাকালে পারিবারিক কাজ নিয়েও বেশির ভাগ সময় বাইরে থাকে। এই কারনে হাসপাতালে মফস্বল এলাকা থেকে আসা সাধারন ও অসহায় রোগীদের চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম ব্যাহত হয়।
এসব অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় আকস্মিক পরিদর্শনে বের হন শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মু. কামরুল হাসান সেলিম। এ সময় তিনি হাসপাতালটির রেডিওলজী, প্যাথালজী এবং রক্ত পরিসঞ্চলন বিভাগে পরিদর্শনে গেলে অভিযোগের সত্যতা পান। এ সময় তিন বিভাগে ৭ জন চিকিৎসককে কর্মস্থলে অনুপস্থিত দেখে তাদের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কর্মস্থলে ডেকে পাঠান।
জানতে চাইলে হাসপাতাল পরিচালক ডা. মু. কামরুল হাসান সেলিম কারন দর্শানোর বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ওই সাতজন চিকিৎসককে নির্ধারিত সময় কর্মস্থলে অনুপস্থিত পাওয়া গেছে। তাই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কর্মস্থলে উপস্থিত না থাকার কারন জানতে চেয়ে তাদের নোটিশ দেয়া হয়েছে। দুই দিনের মধ্যে তাদের নোটিশের জবাব দেয়ার নির্দেশনা রয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।
উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে শেবাচিম হাসপাতালে আরো ৬ জন চিকিৎসককে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় শোকজ করেন পরিচালক। ওই চিকিৎসকরা প্রাথমিক ভাবে ভুল স্বীকার করায় তাদের ক্ষমা করে দেয়া হলেও পরবর্তীতে দায়িত্ব অবহেলা না করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়।