শেবাচিম শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সায়েমসহ ১৬ নেতাকর্মির বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ বরিশাল ইনষ্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজীর (আইএইচটি) আবাসিক ছাত্রদের কুপিয়ে জখম ও তাদের মালামাল চুরির অভিযোগে মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সাবেকসহ সভাপতি এইচএম সায়েমসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া মামলায় আরো ১০/১২ অজ্ঞাতনামা আসামী রয়েছে। গতকাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফিজিওথ্যারাপীর ২য় বর্ষের আবাসিক ছাত্র সোয়াইব হোসেন আসলাম মামলাটি দায়ের করেন। আদালতের বিচারক নুসরাত জাহান মামলাটির শুনানী শেষে কোতায়োলি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জকে তা এজাহার হিসেবে গ্রহন করার নির্দেশ দেন। মামলায় অভিযুক্ত অন্যান্যরা হলেন ডেন্টাল ৩য় বর্ষের ছাত্র মোঃ সোহাগ, রেডিওলোজী ৩য় বর্ষের ছাত্র রতন, রোহান, তামিন, সুমন, এক রামুল, সম্রাট, নাজমুল, নিজাম, ল্যাব ৩য় বর্ষের ছাত্র জাকারিয়া, ৪র্থ বর্ষের হাসান, ডেন্টাল ২য় বর্ষের ছাত্র মেজবা, নাজমুল রেডিওথেরাপীর ৩য় বর্ষের সুমন ও ফিজিওথেরাপীর ৩য় বর্ষের ছাত্র আমিনুল ইসলাম আতিক। আদালত সূত্র জানায়, গত ১৩ সেপ্টেম্বর পূর্ব বিরোধের জের ধরে  মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সায়েমের নেতৃত্বে অন্যান্যরা ইনষ্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজীর আবাসিক হলে হামলা চালায়। এ সময় তারা হলেন ৫০৭ নং কক্ষের দরজা ভেঙ্গে সেখানে প্রবেশ করে ছাত্র পার্থ প্রতিম বালার ল্যাপটপ নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পার্থ বাধা দিলে সাবেক ছাত্র নেতা সায়েম, সোহাগ ও রতন তাকে কুপিয়ে জখম করে। এছাড়া সোহাগ, দুই সুমন, একরামুল ও আমিনুল ইসলাম আতিক হলে থাকা ছাত্র সৌরভ, সঞ্চিব, মিল্টন ও হুমায়ুন কবিরকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে। এ সময় অপর ছাত্র মামলার বাদী সোয়াইব হোসেন আসলাম তাদের বাধা দিতে এগিয়ে এলে অভিযুক্তরা তাকে মারধর করে। পরে তারা বাদীর ২৫ হাজার টাকা মূল্যের মোবাইল সেট চুরি করে নিয়ে যায় এবং ভাংচুর করে ২ লক্ষ টাকার ক্ষতি করে। এ ঘটনায় গতকাল মামলাটি দায়ের করেন বিচারক ওই নির্দেশ দেন।