শেবাচিমে ওষুধ চুরি কেলেংকারী ॥ স্টাফ নার্সসহ ২ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ শের-ই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালের মহিলা মেডিসিন বিভাগে রোগীদের বিনামূল্যে বিতরণের ১৫ লাখ টাকা মূল্যের ওষুধ মজুদ রাখার মামলায় পুলিশ নার্সসহ ২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছে। ওই ওষুধ রোগীদের মধ্যে বিতরণ না করে বাহিরে বিক্রির জন্য মেডিসিন বিভাগের বিভিন্ন কক্ষে মজুদ রাখা হয়েছিল। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতোয়ালী মডেল থানার এসআই মোঃ কুদ্দুস সম্প্রতি আদালতে সংশ্লিষ্ট আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। অভিযোগপত্রের দুই আসামী হচ্ছেন মহিলা মেডিসিন বিভাগের সাবেক ইনচার্জ সিনিয়র স্টাফ নার্স বিলকিস বেগম ও একই ওয়ার্ডের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী (আয়া) শেফালী বেগম। দুজনই বর্তমানে চাকুরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত রয়েছেন। একই মামলায় শেবাচিম হাসপাতালের আরো ৪ কর্মচারীকে সন্দেহজনক আসামী হিসাবে গ্রেফতার করা করা হলেও অভিযোগপত্রে তাদের মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়ার জন্য আদালতে সুপারিশ করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কুদ্দুস। প্রসঙ্গত, গত ১৩ মে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সহায়তায় পুলিশ মহিলা মেডিসিন বিভাগে অভিযান চালিয়ে ১৫ লাখ টাকা মূল্যের ওষুধ উদ্ধার ও নার্স বিলকিস বেগমকে গ্রেফতার করে। তার আগের দিন চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী কোয়াটারের পুকুর থেকে লক্ষাধিক টাকার ওষুধ উদ্ধার ও কর্মচারী শেফালী বেগমকে গ্রেফতার করা হয়। শেফালী বেগমের স্বীকারোক্তীর ভিত্তিতে মহিলা মেডিসিন বিভাগের বিভিন্ন কক্ষ থেকে ১৫ লাখ টাকা মূল্যের ওষুধ উদ্ধার হয়। হাসপাতালের তৎকালীন পরিচালক ডা. এসএম সিরাজুল ইসলাম এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেছিলেন। অভিযুক্ত ষ্টাফ নার্স বিলকিস বেগম ও কর্মচারী শেফালী বেগম আদালত থেকে জামিনে মুক্ত রয়েছেন।