শেবাচিমের শূন্য পদ পূরণের নির্দেশ হাসানাত এমপির

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ শেবাচিম হাসপাতালের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর শূন্য পদ পূরনে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য পরিচালককে নির্দেশ দিয়েছেন সভাপতি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপি। গতকাল শুক্রবার  সকালে মেডিকেল কলেজ মিলনায়তনে তার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বলেন,  সরকার গত ৫ বছরে ১৩ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক ও ২৪টি নতুন সরকারি হাসপাতাল নির্মাণ করেছে। ৭টি নার্সিং ইনষ্টিটিউটকে কলেজে উন্নীতকরণ এবং নতুন ১২টি নার্সিং ইনষ্টিটিউট ও ৪টি হেলথ টেকনোলজি ইনষ্টিটিউট স্থাপন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের স্বাস্থ্য খাত আধুনিক প্রযুক্তিতে সমৃদ্ধ হয়েছে। শিশু ও মাতৃ মৃত্যুর হার হ্রাস পাওয়ায় বর্তমান সরকার পুরস্কৃত হয়েছে। সভাপতি সাবেক চিফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত দ্রুততম সময়ের মধ্যে জনবল নিয়োগ, নির্মিয়মান ৫০০ শয্যার নতুন ভবনের কাজ সম্পন্ন করা, মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা ও খাবার বিনামূল্যে হাসপাতাল থেকে দেয়া, চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের আবাসিক ভবন সংস্কারসহ হাসপাতালের বিরাজমান সংকট সমাধানের তাগিদ দেন।
সভায় সাংসদ তালুকদার মোঃ ইউনুস, পংকজ দেবনাথ ও শেখ টিপু সুলতান আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন।
হাসপাতালের পরিচালক ডা. কামরুল হাসান সেলিম সভায় বলেন, ৫০০ শয্যার বিপরীতে বর্তমানে প্রতিদিন রোগী থাকে ১ হাজার ২০০ থেকে দেড় হাজার। ফলে মেঝে ও বারান্দায় রেখে রোগীদের চিকিৎসা দিতে হয়। এ কারণে যথাযথ চিকিৎসা সেবা বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। তিনি নির্মাণাধীন নতুন ভবনের নির্মাণ কাজ  সম্পন্নের দাবি জানান। এ প্রসঙ্গে গণপূর্ত বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. আব্দুর রহিম সভায় অবহিত করেন, নির্মাণাধীন ৫০০ শয্যার  নতুন ভবনের ঠিকাদারের সঙ্গে কর্তৃপক্ষের আইনী জটিলতা কাটাতে বিধি অনুযায়ী সমঝোতার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। অচিরেই নতুন ভবনের কাজ পুনরায় শুরু করা সম্ভব হবে। কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম নুরু দুস্থ মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা ও খাবার বিনামুল্যে দেয়ার দাবি জানালে সভাপতি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ তাৎক্ষণিক হাসপাতাল পরিচালককে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। হাসপাতাল পরিচালক ডা. কামরুল হাসান সেলিম সভায় জানান, মুক্তিযোদ্ধাদের বিনামুল্যে কেবিন সুবিধা দেয়া হচ্ছে। এখন থেকে তারা বিনামুল্যে খাবারও পাবেন। পরিচালক বলেন, হাসপাতালের ১০টি লিফটিই জীবনী শক্তিহীন। নতুন লিফটের জন্য মšúণালয়ে চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. ওহাব হাওলাদার, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ডা. সাব্বির আহম্মেদ খান, সিভিল সার্জন ডা. এটিএম মিজানুর রহমান, ডা. হাওয়া আক্তার জাহান, ডা. ভাস্বর সাহা, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি একেএম জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. মনিরুজ্জামান শাহীন।