শেবাচিমের শিক্ষার্থীদের ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতি পুনর্বহালের দাবিতে মানব বন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মেডিকেল শিক্ষা ব্যবস্থায় ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতি পুনর্বহালের দাবিতে নগরীতে মানব বন্ধন করেছে শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা । গতকাল শনিবার বেলা ১২ টায় অশ্বিনী কুমার হল চত্বরের সামনের সড়কে মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা এই কর্মসূচি পালন করে।
মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘২০০২ সালের প্রণীত কারিকুলাম অনুযায়ী মেডিকেল কলেজে শিক্ষার্থীরা ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতিতে পাঠদান করে আসছে। এই পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীরা বছরে তিনবার অনুষ্ঠিত পেশাগত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জনের পরেই দ্বিতীয় পেশাগত পরীক্ষার যাবতীয় ক্লাসে অংশগ্রহণের অনুমোদনপ্রাপ্ত হতো। এ কারিকুলামে পেশাগত পরীক্ষা ছিল তিনটি এবং একজন শিক্ষার্থী কোনো বিষয়ে উত্তীর্ণ না হলেও ৬ মাস পর অনুষ্ঠিত সাপ্লিøমেন্টারিতে কৃতকার্য হলে তার শিক্ষাবর্ষ পিছিয়ে পড়তো না।’
বক্তারা বলেন, ‘কিন্তু নতুন কারিকুলাম অনুযায়ী একজন শিক্ষার্থী প্রথম সাপ্লিøমেন্টারি পরীক্ষায় কৃতকার্য হলেও সে তার শিক্ষাবর্ষ থেকে ৬ মাস পিছিয়ে যাবে। এ ক্ষেত্রে পিছিয়ে যাওয়া শিক্ষার্থীদের নিয়ে নবগঠিত ব্যাচের একাডেমিক কার্যক্রম সম্পর্কে সুস্পষ্ট দিক নির্দেশনা এ কারিকুলামে উল্লেখ নেই।
ফলে মেডিকেল শিক্ষাব্যবস্থা স্থবির হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করে শিক্ষার্থীরা বলে, ‘প্রাতিষ্ঠানিক অবকাঠামোর অপ্রতুলতা এবং পর্যাপ্ত শিক্ষকের অভাবে দুটি চলমান ব্যাচের সঙ্গে একটি ব্যাচের শিক্ষা কার্যক্রম দুরূহ ব্যাপার হয়ে দাঁড়াবে।’
অন্যদিকে, এ পদ্ধতির কারণে সরকারি মেডিকেল কলেজ ছাত্রাবাসগুলোতে তীব্র আবাসন সংকট দেখা দিবে এবং রাজস্বখাত থেকে অতিরিক্ত ব্যয় হবে। বেসরকারি মেডিকেলের শিক্ষার্থীরা একটি বিশাল আর্থিক বাধার সম্মুখীন হবে বলেও মন্তব্য করে বক্তা শিক্ষার্থীরা।
এছাড়া মেডিকেল কলেজগুলোর মূল চালিকাশক্তি প্রতি বছর প্রায় ২ হাজার ইন্টার্ন চিকিৎসকের সংকট দেখা দেবে এবং সময়মতো বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিতে না পারায় গ্রামাঞ্চলে চিকিৎসক সংকট দেখা দেবে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।
এ পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনকে স্বাভাবিক করতে নতুন কারিকুলামে ‘ক্যারি অন’ পদ্ধতি পুনর্বহালের জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে শিক্ষার্থীরা। এসব বক্তব্য রাখেন, মাসুদুর রহমান, মুরাদ হোসেন, সালাউদ্দিন কোরেশী, মো. মতিউর রহমান, সাদ্দাম হোসেন ।
এর আগে একই দাবিতে গত বৃহষ্পতিবার কলেজ অধ্যক্ষ বরাবর স্মরকলিপি প্রদান ও সংবাদ সম্মেলন করেন মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা।