শেবাচিমের ভর্তি পরীক্ষায় অনুপস্থিত ১১২ জন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। কঠোর নিরাপত্তা ও নজির বিহিন শৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে গতকাল শুক্রবার অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষায় দুই সহ¯্রাধিক প্রার্থী রেজিস্ট্রেশন করলেও অংশ নিয়েছে ১ হাজার ৯৪৭ জন। সে অনুযায়ী মেডিকেল কলেজের প্রতিটি আসনের বিপরীতে অংশ ভর্তি যুদ্ধে অংশ নিয়েছে প্রায় ৮জন।
মেডিকেল কলেজের ছাত্র শাখার অফিস সহকারী মোঃ রনি আজকের পরিবর্তনকে জানান, শুক্রবার সকাল ১০টায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ও ইনস্টিটিউট অব হেল্থ টেকনোলজীতে শুরু হয় ভর্তি পরীক্ষা। এমবিবিএস ১৯৭ ও বিডিএস (ডেন্টাল) ৫২টি মিলিয়ে ২৪৯টি আসনের বিপরীতে এক ঘন্টার এ ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে এক হাজার ৯৪৭ জন। কিন্তু ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহনের জন্য অনলাইনের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করেছিলো দুই হাজার ৫৯ জন। সে অনুযায়ী অনুপস্থিতির সংখ্যা মাত্র ১১২ জন। এদের মধ্যে সঠিক সময়ে কেন্দ্রে না আসা, প্রবেশপত্র সাথে না আনা এবং প্রবেশ পত্রের মূল কপি সাথে না আনায় ৫১ জন পরীক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। এর মধ্যে পটুয়াখালী থেকে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা রিক্তা আক্তার নামের এক পরীক্ষার্থীর বাবা সোলায়মান পাটোয়ারীর অভিযোগ মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের অনিয়ম এবং অব্যবস্থাপনার জন্যই তার মেয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। তিনি বলেন, পরীক্ষার পূত্রে তারা ভালো ভাবে জানিয়ে দেয়নি যে প্রবেশপত্রের মূল কপিও সাথে আনতে হবে। এ জন্যই তাদের ভুল হয়েছে।
বাবুগঞ্জ থেকে আসা গাছ ব্যবসায়ী আয়নাল তালুকদারের মেয়ে সাথী অভিযোগ করে বলেন, যান্ত্রিক সমস্যার কারনে আইএইচটি ক্যাম্পাসে পৌছাতে তার মাত্র ৫ মিনিট দেরি হয়েছে। এজন্য তাকে হলে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। অনেক অনুনয়-বিনয় করে সমস্যার কথা জানালেও হলের দায়িত্বরত পরীক্ষকরা তাকে প্রবেশ করতে দেয়নি।
জানতে চাওয়া হলে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ সাব্বির হোসেন জানান, নিরাপত্তা এবং স্বচ্ছতার জন্য যারা দেরি করে কেন্দ্রে এসেছে তাদের হলে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। এছাড়া পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশপত্রের ফটোকপি গ্রহনযোগ্য নয়। স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় থেকে এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে আমাদের এ বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে। এ জন্য কেউ পরীক্ষা না দিতে পারলে তার জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ দায়ি নয়। তবে এবারের ভর্তি পরীক্ষা খুব সুষ্ঠ, শান্তিপূর্ন এবং কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে বলে দাবী করেছেন তিনি।