শুধু নামের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার উদ্বোধন

রুবেল খান ॥ এইচএসসি পরীক্ষার চারদিন বাকি থাকতেই শুরু করা হলো ১৩ তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। কোন প্রকার আন্তর্জাতিক মানের পণ্য সামগ্রী কিংবা স্টল ছাড়াই গতকাল শুক্রবার নাম মাত্র এই মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে।
এদিকে বাণিজ্য মেলায় আন্তর্জাতিক মানের কোন পণ্য কিংবা স্টল না থাকলেও রয়েছে বিপুল সংখ্যক জুতা, মেয়েদের পোশাক আর ব্যাগের দোকান। তাছাড়া মেলার পাশেই চলে যাত্রা এবং জুয়ার আয়োজন। খুব শিঘ্রই বাণিজ্য মেলার আড়ালে এই অশ্লীলতা কার্যক্রম শুরু হবে বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে।
জানাগেছে, আগামী চার দিন বাদেই উচ্চ মাধ্যমিক (এইচ.এস.সি) এবং সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। এজন্য ঘরে ঘরে শিক্ষার্থীরা নিচ্ছেন পরীক্ষার প্রস্তুতি। কিন্তু সেই মুহূর্তেই নগরীর বান্দ রোডে বিআইডব্লিউটিএ’র মেরিন ওয়ার্কসপ মাঠে বাণিজ্য মেলা শুরু করেছে দি বরিশাল চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি লিমিটেড। অথচ এই স্থানে মাস ব্যাপী বাণিজ্য মেলার অনুমোদন মিলেছে আরো এক মাস পূর্বে। এখন এই মেলার আয়োজন করাটা শিক্ষার্থীদের লেখা পড়ায় অমনোযোগি করে তোলার একটি ষড়যন্ত্র বলে অভিযোগ অভিভাবকদের।
খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির ব্যানারে মেলার আয়োজন করে প্রতি বছর বরিশালবাসীর কাছ থেকে ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীরা হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। এবারেও সেই একই মিশন নিয়ে বাণিজ্য মেলা শুরু করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন নগরীর সাধারণ জনগন।
তারা বলেন, বহু জল্পনা কল্পনার পর এইচএসসি পরীক্ষার শুরুর কদিন পূর্বে গতকাল মেলার উদ্বোধন হলেও নেই আন্তর্জাতিক মানের সামগ্রী ক্রয়-বিক্রয় কিংবা স্টলের ব্যবস্থা। যে কারণে এদিক থেকেও হতাশ হয়েছেন দর্শনার্থীরা। তার মধ্যে আবার প্রবেশ মূল্যও নির্ধারণ করা হয়েছে।
মেলার আয়োজকরা জানিয়েছেন, এবারের মেলায় ৯০টি স্টোল রয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত ৭০টি স্টল বরাদ্দ হয়েছে। বাকিগুলো শূন্য অবস্থায় রয়েছে। অবশ্য এসব স্টলে ব্যবসায়ীদের আনার জন্য চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন তারা। তাছাড়া এবারের বাণিজ্য মেলায় কোন প্রকার যাত্রা জুয়া কিংবা অশ্লীলতা হবে না বলে দাবী জানিয়েছেন আয়োজকরা।
এমনটি দাবী করা হলেও বাস্তবে দেখাগেছে ভিন্ন চিত্র। মেলার আয়োজক কমিটির বেশ কয়েকজন জানিয়েছেন, বরিশালে বাণিজ্য মেলা হবে আর যাত্রা জুয়া হবে না এটা হতে পারে না। আর সে জন্যই জুয়া এবং যাত্রা সহ সকল ধরনের আয়োজন চলছে। মহানগর যুবলীগের সুবিধাবাদী সদস্য আবুয়াল হোসেন অরুন এর তত্ত্বাবধায়নে জুয়া এবং অশ্লীলতার প্রস্তুতি চলছে।
অপরদিকে মেলার মাঠে ঘুরে দেখাগেছে, আন্তর্জাতিক মানের মেলা নাম দেয়া হলেও এখানে আন্তর্জাতিক মানের কোন পণ্যসামগ্রী কিংবা স্টোল নেই। ৭০টি স্টলের মধ্যে ১৭টি স্টলে মেয়েদের পোশাক, ৯টি মেয়েদের ব্যাগের স্টল, ৭টি জুতার স্টল, সিরামিক্স এর ৫টি স্টল রয়েছে। বাকিগুলো শিশুদের খেলনা, মেয়েদের কসমেটিক্স, শো-পিস এবং চটপটির স্টল দেয়া হয়েছে। তাও মেলার মাঠে যেসব দেশীয় পণ্য সামগ্রী উঠানো হয়েছে তার সবগুলোই নি¤œ মানের এবং মেডইন জিঞ্জিরার ভেজাল পণ্য। যে কারণে প্রথম দিনে মেলায় গিয়ে বহু দর্শক হতাশ হয়ে ফিরে গেছেন। এসময় দর্শনার্থীরা নামে মাত্র বাণিজ্য মেলার নামে ধান্দাবাজী এবং এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালীন বাণিজ্য মেলা বন্ধ রাখার অনুরোধও জানিয়েছেন।