শিশু সন্তানকে দুধ পান করানো অবস্থায় গৃহবধুকে শ্যাকায় স্বামী-শাশুড়ী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নগরীতে যৌতুকের জন্য গরম খুন্তি দিয়ে গৃহবধুকে পিঠে শ্যাকা দেয়ার অভিযোগে স্বামী ও শ্বাশুরীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার হওয়া স্বামী খোকন মোল্লা আমানতগঞ্জ ঝাপ বস্তির হাবিব মোল্লার ছেলে ও নগরীর বান্দ রোড মা অটো সার্ভিসের মটর মেকানিক ও শাশুড়ী মমতাজ বেগম। গৃহবধূ চরকনজী এলাকার কৃষক জালাল হাওলাদারের কন্যা জোসনা বেগম শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
পরিবার সুত্র জানায়, দুই বছর পূর্বে সামাজিকভাবে জোসনার সাথে খোকনের বিয়ে হয়। বর্তমানে ৪ মাস বয়সী কন্যা সন্তানের জনক-জননী তারা।  সম্প্রতি খোকন স্ত্রী জোসনাকে এক লাখ টাকার যৌতুক দাবি করে। কিন্তু জোৎসনা তার বাবার কাছ থেকে টাকা আনতে অপরাগতা প্রকাশ করায় তার ওপর নির্যাতন শুরু হয়। গত ১৬ সেপ্টেম্বর টাকার জন্য জোসনাকে স্বামী খোকন ও শাশুড়ী মমতাজ বেগম বেদম মারধর করে। এক পর্যায়ে তার পিঠে গরম আয়রন দিয়ে শ্যাকা দেয়। এতে জোসনার পিঠ ঝলসে গেছে। পরে আইনী ঝামেলা এড়াতে জোসনাকে নানা ধরনের হুমকি দেয়া শুরু করে। এক পর্যায়ে এই শ্যাকা দেয়ার ঘটনায় আইনী ব্যবস্থা নেয়া হলে তালাক দেয়া হবে। এছাড়াও কন্যা সন্তানকে দেয়া হবে না বলে হুমকি দেয়। এমন ভয়ভীতি প্রদর্শন করে স্বামী ও শাশুড়ী জোসনাকে নিয়ে কাউনিয়া থানায় নিয়ে যায়। সেখানে পুলিশের কাছে জোসনা নিজে শ্যাকা দিয়েছে বলে স্বীকারোক্তি দিতে বাধ্য করে। তখন পুলিশের সন্দেহ হলে কাউনিয়া থানার ওসি কাজী মাহবুবুর রহমান গৃহবধূকে এক ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তখন গৃহবধূ জোসনা তার উপর নির্যাতন, শ্যাকা দেয়া ও হুমকির ঘটনা প্রকাশ করেন।
কাউনিয়া থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) কামরুজ্জামান বলেন, গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়ী বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্ঠা করে। এইজন্য তারা তালাক ও ৪ মাসের সন্তানকে না দেয়ার হুমকি দিয়ে থাকায় নাটক করতে আসে। স্বাভাবিক দৃষ্টিতে নাটকের বিষয়টি ধরা পড়ে যায়। তখন প্রকৃত ঘটনা জানার পর স্বামী ও শাশুড়ীকে আটক করা হয়।
এসআই কামরুজ্জামান গৃহবধূর উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ৪ মাসের শিশু সন্তানকে বুকের দুধ পান করাতে ছিলো গৃহবধূ। তখন আকস্মিকভাবে শাশুড়ী মমতাজ বেগম গরম খুন্তি দিয়ে পিঠে শ্যাকা দেয়। এর আগে যৌতুকের টাকার জন্য শশুড় হাবীব ও স্বামী খোকন তাকে নির্যাতন করেছে। তাদের সহযোগিতায় শাশুড়ী শ্যাকা দিয়েছে। এতে গৃহবধূর পিঠ বীভৎস্যভাবে ঝলসে গেছে জানিয়ে এসআই কামরুজ্জামান বলেন, বিষয়টি মর্মান্তিক ও হৃদয়বিদারক। এই ঘটনায় গৃহবধূর বাবা বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মামলায় স্বামী ও শাশুড়ীকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। মামলার তদন্ত করবেন এসআই নুরুল আলম।