শিশু সদনে দুই ছাত্রীকে বেধড়ক লাঠিপেটা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল সরকারী শিশু সদনে (বালিকা) দুই শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগ তদন্তে কমিটি গঠণ করা হবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক গাজী মো. সাইফুজ্জামান। গতকাল মঙ্গলবার শিশু সদন পরিদর্শণ শেষে তিনি এ কথা জানিয়েছেন। গত রোববার শিশু সদনের দুই ছাত্রীকে বেধড়কভাবে লাঠিপেটা করার ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে পরিদর্শণে যান জেলা প্রশাসক। সেখানে গিয়ে তিনি দুই ছাত্রী ছাড়াও সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলেছেন।
জেলা প্রশাসক গাজী মো. সাইফুজ্জামানের পরিদর্শনকালে সাথে থাকা স্থানীয় সংবাদ কর্মী জানায়, গত রোববার সদনের তৃতীয় শ্রেনী পড়–য়া আখি ও ডালিয়ার মা দেখা করতে আসে। তাদের সাথে ওই দুই শিক্ষার্থী নথুল্লাহবাদ বাসষ্ট্যান্ডে যায়। সেখানে তাদের সাথে সদনের কম্পাউন্ডার মো. দুলালের সাথে দেখা হয়। সে তখন দুজনকে বকাবকি করে। এতে তারা ভয় পেয়ে সাগরদী ব্রীজ এলাকায় মোবাইল ফোনের দোকানে যায়। সেখান থেকে তাদের সদনে নিয়ে এসে কম্পাউন্ডার দুলাল লাঠিপেটা করে।
ওই দৃশ্য ভিডিও করার পর তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়া হয়। যা স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে এসে পৌছে। তখন বিষয়টি জানার জন্য সদনে যায় হলে তাদের ভিতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।
তখন সাংবাদিকরা বিষয়টি জেলা প্রশাসক গাজী মো. সাইফুজ্জামানকে অবহিত করে। খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক তিনি সদনে যান।
জেলা প্রশাসক অভিযোগ সম্পর্কে সদনের উপ- তত্ত্বাবধায়ক ইসমত আরা লাঠিপেটার বিষয়টি স্বীকার না করলে লাঠি দিয়ে ভয় দেখানোর কথা স্বীকার করে।
তখন দুই ছাত্রীর কাছে জানতে চাইলে ভয়ে প্রথমে তারা অস্বীকার করলেও পরে স্বীকার করে। তখন জেলা প্রশাসক ঘটনা তদন্ত করে দোষীকে খুঁজে বের করার জন্য তদন্ত কমিটি গঠন করার কথা জানিয়ে বলেন, এই ঘটনায় কোন নিরীহ শাস্তি পাবে না।
কমিটি গঠনের পর সংবাদ মাধ্যমে জানিয়ে দেয়ার কথা বলেছেন জেলা প্রশাসক।