লাহারহাট শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয় ভাংচুর মামলায় ১৬ শ্রমিক কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ দুই পিকআপ ভ্যানের শ্রমিকদের মধ্যে বিরোধকে কেন্দ্র করে লাহারহাট ট্যাঙ্কলড়ি শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে শ্রমিকদের উপর হামলা এবং ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে এই ঘটনায় হামলায় অংশ নেয়া ১৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে গ্রেপ্তারকৃতদের জেল হাজতে পাঠিয়েছে বরিশাল মেট্রোপলিটন বন্দর (সাহেবের হাট) থানা পুলিশ।
কারাগারে প্রেরনকৃতরা হলো, আল আমিন, শিপন হাওলাদার, রফিকুল ইসলাম, পলাশ, সজিব হাওলাদার, করিম হাওলাদার, আরিফুল ইসলাম, আব্দুর রহমান তুষার, হেমায়েত হোসেন, ফারুক হোসেন, আল আমিন ফরাজি, বাবুল হোসেন, রেজওয়ান হাওলাদার, রুবেল হাওলাদার, মিজানুর রহমান ও স্বপন ।
শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান সালাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ধানসিঁড়ি পরিবহনের একটি মালবাহী পিকআপ ভ্যান শশা বোঝাই করে ভোলা থেকে লাহারহাট হয়ে বরিশালের উদ্দেশ্যে আসছিলো। পিকআপ ভ্যানটি ভোলার ভেদুরিয়া ফেরীঘাটে ওঠার সময়ে প্রান কোম্পানীর অপর একটি পিকআপ ভ্যান (নং ঢাকা মেট্রো- উ-১২০৮৪৩) ওই পিকআপটির পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এ নিয়ে দুই পিকআপ শ্রমিকদের মাঝে ঝগড়া এবং বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায় ধানসিঁড়ি পিকআপ ভ্যানের চালক স্বপন আলী ও হেলপার মিজানুরকে মারধর করে প্রান কোম্পানীর গাড়ির শ্রমিকরা। ঘটনার পর মারধরের শিকার মিজানুর ও স্বপন লাহারহাট ট্যাঙ্কলড়ি শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে এসে অভিযোগ দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয় প্রান কোম্পানির পিকআপ শ্রমিকরা। এর প্রেক্ষিতে প্রান কোম্পানীর পিকআপ ভ্যানের শ্রমিকরা বরিশালে তাদের লোকজনদের লাহারহাটে ট্যাঙ্কলড়ি শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে আসে। সেখানে দুই পক্ষের মধ্যে দ্বিতীয় দফায় বাক বিতন্ডার এক পর্যায় রাত ১২টার দিকে ট্যাংক লড়ি শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয়ের মধ্যেই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এমনকি ট্যাঙ্কলড়ি শ্রমিক নেতাদের মারধর ও শ্রমিক কার্যালয়ে ভাংচুর চালায়। এই অভিযোগে রাতেই ট্যাঙ্কলড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান সালাম বাদী হয়ে দু’টি পিকআপ ভ্যানের মধ্যে ধাঁনসিড়ি কোম্পানির পিকআপ এর দু’জন এবং প্রান কোম্পানির ১৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।
বরিশাল মেট্রোপলিটন বন্দর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মালেক বলেন, মামলার সূত্রধরে রাতেই অভিযান চালিয়ে ১৬ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছেন তারা। পাশাপাশি ঘটনাস্থল হতে প্রান কোম্পানির দুটি সহ মোট তিনটি পিকাআপ ভ্যান জব্দ করা হয়েছে। তাছাড়া শ্রমিক নেতার দায়েরকৃত মামলায় ১৬ জনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলে প্রেরন করা হয়েছে।