লঞ্চ যাত্রীদের উপর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ সিট রাখাকে কেন্দ্র করে লঞ্চের যাত্রীদের উপর হামলা চালিয়ে নৌ পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে নগরীর আধুনিক নৌ বন্দরে পারবত-৯ লঞ্চে এই ঘটনা ঘটে। এতে লঞ্চ যাত্রী ঢাকা স্যার সলিমউল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স জয়া পাল, তার স্বামী তপন পাল, দেবর মহাদেব পাল, ছেলে তমাল পাল ও মেয়ে তমা পাল আহত হয়েছে। এ ঘটনার জের ধরে আহত যাত্রীদের স্বজনরা রাতে ঘেরাও করে রাখে নৌ পুলিশ কার্যালয়।
যাত্রী ও সিনিয়র নার্স জয়া পাল জানান, সম্প্রতি সদর উপজেলার সায়েস্তাবাদ তার শ্বশুর বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠানে আসেন। গতকাল শনিবার অনুষ্ঠান শেষ করে ঢাকায় ফেরার উদ্দেশ্যে পারাবত-৯ লঞ্চে উঠেন। এসময় নিচ তলার ডেকে নৌ পুলিশ ফাঁড়ির কনস্টেবল দেলোয়ারের রাখা চাঁদর একটু পাশে সরিয়ে সেখানে যায়গা করে নেন তারা। এ নিয়ে দেলোয়ারের সাথে তাদের কথা কাটাকাটির সৃষ্টি হয়। এক পর্যায় নৌ পুলিশের টিএসআই নজরুল ইসলাম এর নেতৃত্বে কনস্ট্রেবল দেলোয়ার সহ ৭/৮ জন মিলে যাত্রী জয়া পরিবারের উপরে হামলা চালায়। এক পর্যায় মা মেয়েকে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি ও লাথি দিয়ে আহত করে। এসময় লঞ্চের অন্যান্য যাত্রীরা তাদের রক্ষা করে।
এদিকে খবর পেয়ে জয়া’র শ্বশুর বাড়ির আত্মিয়রা নৌ টার্মিনালে এসে নৌ-পুলিশ কার্যালয় ঘেরাও করে। এসময় সায়েস্তাবাদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান মুন্না ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন এবং পুলিশি হামলার প্রতিবাদ এবং বিচারের দাবীতে আহতদের নিয়ে কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের কাছে যান।
জানতে চাইলে কোতয়ালী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাখাওয়াত হোসেন জানান, উভয় পক্ষকে নিয়ে তারা থানায় বসেছেন। তাই পরবর্তীতে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানান তিনি ।