মৎস্য সপ্তাহ পালন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ দক্ষিণ উপকূলীয় অঞ্চলে জলবায়ু পরিবর্তনের মোকাবেলার প্রস্তুতি এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে বিকল্প মৎস্য চাষ বিষয়ের উপর গুরুত্বারোপ করার আহবান জানায় বক্তারা। ৭ দিন ব্যাপী মৎস্য সপ্তাহের শেষ দিনে মূল্যায়ন সভা, সমাপনি অনুষ্ঠান ও সফল মৎস্য চাষীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ জেলা মৎস্য অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদপ্তরের যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত সমাপনি অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক ড. গাজী মোঃ সাইফুজ্জামান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার মোঃ গাউস। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য অধিদপ্তরের বিভাগীয় উপ-পরিচালক মোঃ বজলুর রশীদ। ‘সাগর, নদী সকল জলে মাছ চাষে সোনা ফলে’ এই স্লোগানে বক্তারা বলেন, বৈচিত্রপূর্ণ এই মৎস্য ভান্ডার এদেশের মানুষের খাদ্য, পুষ্টি, কর্মসংস্থান ও বৈদিশিক মুদ্রা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে মৎস্য অধিদপ্তরের ১৩টি উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। যে প্রকল্পের মাধ্যমে এদেশের জেলেদের বিকল্প কর্মসংস্থান, বেকার যুবকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে স্বাবলম্বী করাই মূল উদ্দেশ্য হয়ে দাড়িয়েছে। এ সময় তারা বলেন, বর্তমানে জেলায় হেক্টর প্রতি গড়ে ৪ টনের বেশি মৎস্য উৎপাদন হচ্ছে। যা আগামী ২০২০-২১ সালের মধ্যে হেক্টর প্রতি ৫-৬ টনে উন্নীত করার লক্ষ্যে মৎস্য অধিদপ্তর কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়াও বর্তমানে মৎস্য অধিদপ্তরে অনুসন্ধানী জাহাজ যুক্ত হচ্ছে। যার মাধ্যমে সাগরের কোন স্তরে কি পরিমাণ মাছ রয়েছে সেগুলো নির্ধারণ করা সম্ভব হবে। সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে জেলার ৬ জন সফল মৎস্য চাষীকে মৎস্য পুরষ্কার দেয়া হয়েছে। পুরষ্কার প্রাপ্তরা হলেন, উজিরপুর উপজেলার কারফা গ্রামের গলদা চিংড়ি উৎপাদনকারী তপন কুমার বিশ্বাস, সদর উপজেলার রায়পাশা কড়াপুর ইউনিয়নের সমাজ ভিত্তিক মৎস্য উৎপাদনকারী সোহেল রানা, গৌরনদী উপজেলার হরহর গ্রামের ভিয়েতনাম কৈ উৎপাদনকারী মনোতোষ দাস, বানারীপাড়া উপজেলার বাইশারী গ্রামের গুণগত মানের রেনু উৎপাদনকারী মোঃ নজরুল ইসলাম বারেক, সদর উপজেলার কলাডেমা গ্রামের তেলাপিয়া মাছ ওপাড়ে সবজি উৎপাদন কারী মোঃ তরিকুল ইসলাম, টুঙ্গিবাড়িয়ার বিশারদ গ্রামে কার্পজাতীয় মাছের সাথে মলা মাছ উৎপাদনকারী কনক বালা। সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য অধিদপ্তরের সিনিয়র সহকারী পরিচালক আজিজুল হক, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান, মৎস্য কর্মকর্তা (ইলিশ) বিমল চন্দ্র দাস, সদর উপজেলার সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা শামিমা ইয়ামিন প্রমুখ।