মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার ভোট গ্রহন আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ আজ হচ্ছে জেলার সর্বশেষ মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ইতোমধ্যে ভোট গ্রহণের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। সন্ত্রাসের জনপথখ্যাত এ উপজেলায় অতীতের নির্বাচনে কলংকে কারনে অবাধ সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে রয়েছে সেনাবাহিনী। পাশাপাশি অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল পরিমান সদস্য থাকবে।
জেলা পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্ল্য¬াহ জানান, ১৩ ইউনিয়ন ও দুই থানা নিয়ে গঠিত মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলায় শতাধিক সেনা ছাড়াও পুলিশের ৯০০, র‌্যাব, কোস্টাগার্ড, বিজিবি এবং আনসার ও ভিডিপির সদস্য নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন।
তবুও ভোট ডাকাতির আশংকা একাধিক প্রার্থীদের। শুক্রবার রাতে দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে পৃথক পৃথক মতবিনিময় সভার ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মেজর (অবঃ) নাসির উদ্দিন খান, আ’লীগের বিদ্রোহী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ আব্দুল জব্বার কানন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী চৌধুরী শরিফা নাসরিন শামিম হায়দার এই শংকা প্রকাশ করেছেন।
এ উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আ’লীগ সমর্থিত এ্যাড. মুনসুর আহমেদ-দোয়াত কলম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সমর্থিত মেজর (অবঃ) নাসির উদ্দিন খান-কাপ পিরিচ, বিএনপি সমর্থিত সৈয়দ রফিকুল ইসলাম লাবু-আনারস, বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী গোলাম ওয়াহীদ হারুন-মটরসাইকেল।
পুরুষ ভাইসচেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আ’লীগ সমর্থিত খোরশেদ আলম ভুলু-উড়োজাহাজ, বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল জব্বার কানন-তালা, বিএনপি সমর্থিত জামায়াত নেতা সাইফুর রহমান-চশমা।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আ’লীগ সমর্থিত রওমান বিনতে শফিকুল ইসলাম রুমন-পদ্মফুল, বিদ্রোহী প্রার্থী আফরোজা কবীর শিউলী-প্রজাপতি, বিএনপি সমর্থিত মুনমুন আক্তার রুবী-ফুটবল, বিদ্রোহী প্রার্থী চৌধুরী শরিফা নাসরিন শামিম হায়দার-কলস, স্বতন্ত্র প্রার্থী আলেয়া বেগম-হাঁস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্ধীতা করছেন।
উপজেলা নির্বাচন অফিসার আব্দুল কাদির জানান, এ উপজেলার ১৩ ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৮৫ হাজার ৫৭৯ জন। উপজেলার কাজীরহাট থানার ১৯টি ও মেহেন্দীগঞ্জ থানার ৫৫সহ মোট ৭৪টি ভোট কেন্দ্রের ৮৯৯ বুথে ভোট গ্রহণের জন্য ৬০২জন প্রিসাইডিং ও সহকারি প্রিসাইডিং অফিসার দায়িত্ব পালন করবেন।