মেহেন্দিগঞ্জে স্ত্রী হত্যায় স্বামী সহ ৮জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ মেহেন্দিগঞ্জে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে স্বামী সহ একই পরিবারের ৮ জনের বিরুদ্ধে নালিশি অভিযোগ করা হয়েছে। গতকাল সোমবার নিহতের মা তাছলিমা বেগম জেষ্ঠ বিচার বিভাগীয় আদালতে এ অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগটি আমলে নিয়ে বিচারক মোঃ আশ্রাফ উদ্দিন মেহেন্দিগঞ্জে করা ইউডি মামলার পুলিশি প্রতিবেদন প্রাপ্তি সহ আদেশের দিন ধার্য করেন। নালিশিতে অভিযুক্তরা হলো মেহেন্দিগঞ্জ রাজাপুরের সোহেল রাঢ়ী, রুহুল আমিন রাঢ়ী, রুবেল রাঢ়ী, এদের পিতা আঃ ছত্তার রাঢ়ী, মাতা ছাবেরা খাতুন, চাচা ছালাম রাঢ়ী, লাকুটিয়ার মৃত রহিম পালোয়ানের ছেলে নুরু পালোয়ান, হিজলা শংকরপাশার কাঞ্চন সরদারের পুত্র ফরিদ সরদার। তাছলিমা বেগম নালিশিতে উল্লেখ করেন সোহেল রাঢ়ী ঢাকা কামরাঙ্গীর চর থেকে তার কন্যা আফসানা বেগমকে বিয়ের প্রলোভনে মেহেন্দিগঞ্জে নিয়ে আসে। পরে তারা বিয়ে করে। বিয়ের ১৫ দিন পর সোহেলের পিতা ছত্তার তাছলিমা বেগমের কাছে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবী করে। টাকা দিতে না পারায় আফসানাকে শারিরীক ও মানষিক নির্যাতন শুরু করে। পরবর্তীতে ২৪ সেপ্টেম্বর রাতে অভিযুক্তরা রাতভর নির্যাতন করে আফসানাকে হত্যা করে রেখে পালিয়ে যায়। সকালে প্রতিবেশি বিউটি তাদের ঘরে গিয়ে আফসানাকে মৃত অবস্থায় পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। এ ঘটনায় ওই দিনই প্রশান্ত কুমার দে অজ্ঞাত আসামী করে থানায় মামলা করে। সুরতহাল পরীক্ষা করার পরে লাশ তার নিকট হস্তান্তর করলে ঘটনা জানতে পেরে তিনি এই অভিযোগ দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে বিচারক ওই আদেশ দেন।