মেহেন্দিগঞ্জের ফরিদ বাহিনী আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পরে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে মেহেন্দীগঞ্জের ইউপি সদস্য ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী ফরিদ মাঝি ওরফে ফরিদ মেম্বার এবং তার বাহিনী। আয়নাল ফকিরের খাদেম কাওসারকে কুপিয়ে ও হাতুড়ি পেটা করে হত্যা চেষ্টার পরে এবার তাকে স্ব পরিবারে হত্যার হুমকি দিয়েছে ফরিদ ও তার ভাইয়েরা। ফলে জীবন হারানোর আশংকায় দিন পাড় করতে হচ্ছে অসহায় পরিবারটির।
আহত কাওসারের ভাই মিন্টু হাওলাদার জানায়, চাঁদার দাবী না মানায় ভাষানচর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ ক্যাডার ফরিদ মেম্বারের নেতৃত্বে রুহুল আমিন ও শিমুল সহ ৮/১০ তার ছোট ভাই কাওসারকে কুপিয়ে ও হাতুড়ি পেটা করে। পরে কাওসারের মৃত্যু হয়েছে ভেবে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে যায় ফরিদ বাহিনী। তবে ভাগ্যের জোরে বেঁচে যাওয়া কাওসারকে উদ্ধার করে রাতেই ভর্তি করা হয় শেবাচিম হাসপাতালে। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকাজনক। এ নিয়ে গতকাল দৈনিক আজকের পরিবর্তন সহ কয়েকটি পত্রিকায় সন্ত্রাসী বাহিনীর গড ফাদার ফরিদ মেম্বার ও তার বাহিনীর কর্মকান্ড নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে আরো বেপরোয়া হয়ে যায় সন্ত্রাসীদের গড ফাদার ফরিদ, তার ভাই রূহুল আমীন মাঝি, সোহাগ মাঝি সহ বাহিনীর অন্যান সদস্যরা।
এরই পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল বুধবার ফরিদ মেম্বার, তার ভাই রূহুল ও সোহাগ সহ বাহিনীর সদস্যরা কাওসারকে হত্যা কার্যকরের পাশাপাশি তার পরিবারের সদস্যদেরকেও হত্যার পরে গুম করার হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ মিন্টুর। শুধু তাই নয়, মৃত্যু শয্যায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কাওসারকে হাসপাতাল থেকে নাম কাটিয়ে দেয়ার জন্য প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এমনকি বাহিনীর সদস্যদের হাসপাতালে পাঠিয়ে রোগীকে ধরে আনার পরিকল্পনা চলছে বলেও অভিযোগ আহতের পরিবারের। ফলে চরম নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে আয়নাল ফকিরের খাদেম কাওসার ও তার পরিবারের সদস্যরা। এজন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনাও করেছেন পরিবারটি।
উল্লেখ্য, মেহেন্দীগঞ্জের আলোড়ন সৃষ্টিকারী আয়নাল ফকিরের কাছে চাঁদা দাবী করে ভাষানচর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদ মাঝি ওরফে ফরিদ মেম্বার। চাঁদা না পেয়ে ২০ অক্টোবর রাত ৮টার দিকে আয়নাল ফকিরের ভায়রা ছেলে ও খাদেম মোঃ কাওসার হোসেনকে কুপিয়ে ও হাতুড়ি পেটা করে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে। এসময় তার কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা ও একটি মোবাইল সেট ছিনতাই করে নিয়ে যায় সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, অপহরন ও ডাকাতি সহ বিভিন্ন কর্মকান্ডের মুল হোতা ফরিদ মেম্বার ও তার বাহিনী।