মুরতাদদের কবর রচনায় ওলামাদের রাজপথে থাকার আহ্বান চরমোনাই পীরের

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর চরমোনাই পীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করিম বলেছেন, ওলামায়ে কেরামের নিস্ক্রিয়তা ও বিভক্তির সুযোগে গুটিকয়েক নাস্তিক মুরতাদ ইসলামের স্তুম্ভ হজ্বের বিরুদ্ধে কটুক্তি করার সাহস পাচ্ছে। সরকার এসব ধর্মদ্রোহী মুরতাদদের পৃষ্ঠপোষকতা করার মাধ্যমে কোটি কোটি মুসলমানের হৃদয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। ওলামায়ে কেরামের নেতৃত্বে তৌহিদী জনতা মাঠে নেমে এসেছে, সরকার যদি অবিলম্বে মুরতাদ লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নেয় তাহলে তৌহিদী মুসলমানদের গণরোষ থেকে নাস্তিক মুরতাদ এবং তাদের সহযোগিদের কেউ বাঁচাতে পারবে না।
চরমোনাই দরবার শরীফের ৩দিনব্যাপী বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলের দ্বিতীয় দিন গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় চরমোনাই ময়দানে ওলামা-মাশায়েখ ও সুধী সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন পীর সাহেব চরমোনাই। আগত শীর্ষ ওলামা-মাশায়েখ ও লাখ লাখ মুসল¬ীর উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে চরমোনাই পীর আরো বলেন, তৌহিদী জনতার চাপের মুখে লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠানো হয়েছে। এজন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানাই। কিন্ত তাকে জামাই আদরে নিরাপদে রাখলে হবে না, দ্রুত কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। সর্বস্থরের ওলামায়ে কেরামকে নাস্তিক মুরতাদদের কবর রচনা না হওয়া পর্যন্ত রাজপথে থাকার আহবান জানান চরমোনাই পীর। সংসদে মুরতাদদের কঠোর ও সর্বোচ্চ শাস্তির আইন পাশ করতে সরকারকে বাধ্য করতে আগামী ৫ ডিসেম্বর দুপুর ২টায় ঢাকার প্রেসক্লাবে মহাসমাবেশ সফলের জন্য দেশবাসীর প্রতি আহবান চরমোনাই পীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করিম।
সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রেসিয়িাম সদস্য মাওলানা সৈয়দ মোসদ্দেক বিল্ল¬াহ আল মাদানী, আল¬মা নুরুল হুদা ফয়েজী (পীর সাহেব কারীমপুর), নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল আউয়াল, মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা আল্লামা খালিদ সাইফুল্ল¬াহ, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আশরাফ আলী আকন, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, সহকারী মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কাদের, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যাপক হাফেজ মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, কেএম আতিকুর রহমান, মাওলানা নেছার উদ্দিন, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মুফতী দেলওয়ার হোসাইন সাকী, শেখ ফজলে বারী মাসউদ, আলহাজ্ব জান্নাতুল ইসলাম, মাওলানা আতাউর রহমান আরেফী, মুফতী কেফায়েতুল্লাহ কাশফী প্রমুখ।