মহা অষ্টমীতে আজ কুমারী পূজা

চন্দন জ্যোতি॥ ৫দিন ব্যাপী শারদীয় দূর্গোৎসবের আজ তৃতীয় দিন অর্থাৎ মহা অষ্টমী। দিনের শুরুতেই অনুষ্ঠিত হয় কুমারী পূজা। যেখানে দেবীকে কুমারী রূপে পূজা করা হয়। মনে করা হয় দেবী দূর্গা হচ্ছেন শিবপতœী। এই রীতির মাধ্যমে দেবীর আশির্বাদ আরো বেশী করে বর্ষিত হয়। পূজার ৫দিনের মধ্যে আজকের দিনটিকেই সব থেকে পবিত্র বলে ধরা হয়। যে কারনে দেবীর চরণে পূষ্পাঞ্জলী প্রদানের লক্ষ্যে মন্ডপে মন্ডপে ভক্ত সমাগম সবচেয়ে বেশী থাকে। তবে নগরীতে কোন মন্ডপে কুমারী পূজা আয়োজনের সংবাদ পাওয়া যায়নি। তিথি অনুসারে আজ সকাল ৮টা ৫৯মিনিট ১ সেকেন্ড পর্যন্ত মহা অষ্টমী থাকবে। অন্যদিকে গতকাল মহা সপ্তমী পূজা সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। বিকেল থেকেই মন্ডপে মন্ডপে ভক্ত ও দর্শনার্থীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। ঢাকের বাজনা আর নানা ছন্দের গানের তালে তালে উৎসব মুখর হয়ে ওঠে পারিদিক। ভক্ত আর দর্শনার্থীদের ছিলো না কোন ক্লান্তি। বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে গতকাল বিভাগের মোট ১ হাজার ৫৭২টি পূজা মন্ডপে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। মন্ডপের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে প্রশাসনের পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সচেষ্ট রয়েছে। বরিশাল জেলার বিভিন্ন উপজেলার মধ্যে বিশেষ করে আগৈলঝাড়া, গৌরনদী, বানারীপাড়া, উজিরপুরে শারদীয় উৎসবকে ঘিরে এক ভিন্ন আমেজের সৃস্টি হয়েছে। মন্ডপে মন্ডপে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর উৎসবকে উপভোগ করতে পারছে বলে জানালেন পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্যাহ। তিনি জানান উৎসবের বাকী দিনগুলোতেও শান্তিপূর্ন পরিবেশ বজায় রাখতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে। জেলার অন্যান্য স্থানের চেয়ে বরিশাল নগরীর ৩৪টির মধ্যে ২৮টি সার্বজনিন পূজা মন্ডপে গতকাল ভক্ত ও দর্শনার্থীরা বেশ ব্যস্ত ছিলেন প্রতিমা দর্শন আর আলোকসজ্জার বাহারী আলোকসজ্জা দেখতে। তবে সংশ্লিষ্ট সকলেই মনে করছেন আজও দর্শনার্থীদের সংখ্যা সপ্তমীর চেয়েও আরো বেশী থাকবে। তবে নগরীতে অবৈধ যানজটের সংখ্যা বৃদ্ধি ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার অভাবে মাঝে মধ্যে যানজটে ভোগান্তিতে পরতে হচ্ছে দর্শনার্থীদের। তারপর উৎসবের আনন্দে অনেকের কাছে সে বিষয়ে তেমন অভিযোগ ছিলো না।