মহানগর আ’লীগের দুই পক্ষের পৃথকভাবে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে নগরীতে পৃথক পৃথক ভাবে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করেছে মহানগর আ’লীগ। সোমবার রাত থেকে গতকাল মঙ্গলবার দিনভর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর নানা কর্মসূচি পালন করেছে মহানগর আ’লীগের দুটি পক্ষ।
এর মধ্যে গত সোমবার রাত ১২টা ১মিনিটে দলীয় কার্যালয়ে কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কর্মসূচির সূচনা করে একপক্ষ। এসময় মহানগর আওয়ামী লীগের ৩০টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক সহ দলীয় কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে গতকাল মঙ্গলবার সূর্যদয়ের সাথে সাথে কর্মসূচি শুরু করেন মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. আফজালুল করিম ও তার সমর্থকরা। কর্মসূচির অংশ হিসেবে সকালে সদর রোডের শহীদ সোহেল চত্ত্বর সংলগ্ন দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় এবং সাংগঠনিক পতাকা উত্তোলন করেন তারা।
এরপর দলীয় কার্যালয়ের পাশে রক্ষিত বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পন করেন আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের নেতা-কর্মীরা। তবে এসময় দুই গ্রুপের নেতৃত্ব স্থানে থাকা জ্যেষ্ঠ কোন নেতাদের দেখা যায়নি।
অন্যদিকে সকালে দলীয় কার্যালয়ের সামনে রক্ষিত বঙ্গবন্ধু’র প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পন করেন বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. আফজালুল করিম। এসময় উপস্থিত ছিলেন বরিশাল বারের সাবেক সম্পাদক এ্যাড. লস্কর নূরুল হক, কেবিএস আহম্মেদ কবির, পুষ্পার্ঘ অর্পন করেন বরিশাল মহানগর আওয়ামীলীগের অপর গ্রুপের পক্ষে জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. ফজলুল করিম শাহীন, মহানগর যুবলীগের পক্ষে এ্যাড. রফিকুল ইসলাম খোকন, জেলা ছাত্রলীগের পক্ষে হেমায়েত উদ্দিন আহম্মেদ সুমন সেরনিয়াবাত, সাধারন সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, শ্রমিক লীগের পক্ষে জেলার সভাপতি মো. শাহজাহান হাওলাদার, জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষে সভাপতি এ্যাড. আনিস উদ্দিন আহম্মেদ শহীদ প্রমুখ। এছাড়াও মহিলা লীগ, কৃষক লীগ, ঘাট শ্রমিক লীগ, বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদ, মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ সহ আ’লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলী প্রদান করা হয়।
পুষ্পার্ঘ অর্পন শেষে দলীয় কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন নগর আ’লীগের সম্পাদক এ্যাড. আফজালুল করিম।
আলোচনা সভা শেষে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. আফজালুল করিম’র নেতৃত্বে এক বর্ণাঢ্য শোভা যাত্রা বের হয়। দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হওয়া শোভাযাত্রাটি বৃষ্টি উপেক্ষা করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়।