মনপুরায় সী ট্রাক বন্ধে আল্লাহর নামে মেঘনা নদী পাড়ি

মনপুরা প্রতিবেদক ॥ মনপুরা- তজুমদ্দিন নৌ পথের সি-ট্রাক সার্ভিস বিগত বছরের ন্যায় এবারও ৬ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে। প্রাথমিকভাবে সী ট্রাকের বদলে ইজারাদার মোটামুটি বড় ধরনের একটি লঞ্চ দিয়ে যাত্রী পারাপার হলেও ডেঞ্জার জোনের নিষেধাজ্ঞার কারনে গত দেড় মাস ধরে সেই লঞ্চটিও চলাচল করছে না। ফলে প্রতিদিন জীবনের ঝুকি নিয়ে সি-সার্ভের বিকল্প হিসাবে যাত্রীরা উত্তাল নদী পাড়ি দিচ্ছেন ইঞ্জিন চালিত ট্রলার দিয়ে। ফলে চলতি এই মৌসুমে ছোট ছোট নৌ-যান চলার দরুন বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশংকাও করছেন যাত্রীরা।
এদিকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাঠের ছোট ছোট ট্রলারে করে প্রতিদিন উত্তাল মেঘনা পাড়ি দিচ্ছে শিশু মহিলাসহ শত শত যাত্রী। ১৫/২০ হাত দৈর্ঘের একটি ইঞ্জিন ট্রলারে মেঘনা পারাপার করছে শতাধিক যাত্রী। যে কোন সময় কালবৈশাখীর ঝড়ে বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটনার আশঙ্কা থাকার পরও নিরুপায় হয়ে মেঘনা পাড়ি দিতে হচ্ছে এসব যাত্রীদের। সি- ট্রাক বন্ধ থাকার সুযোগে অবৈধ ট্রলার মালিকরা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে নিচ্ছেন। এ নিয়ে ট্রলার মালিকের সঙ্গে যাত্রীদের মধ্যে প্রায়ই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। যাত্রীদের যাতায়াতের সঙ্গে নিত্য প্রয়োজনীয় মালামাল পরিবহনেও দেখা দিয়েছে মারাত্মক সমস্যা। এ অবস্থা চলতে থাকলে চাল, ডাল, তেল,লবনসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পন্য মনপুরায় আনা যে কোন সময় বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করেছে ব্যবসায়ীরা। দিনের পর দিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীরা মেঘনা পাড়ি দিলেও উপজেলা বা জেলা প্রশাসন পালন করছেন নিরব ভূমিকা।
মনপুরা শিক্ষক কল্যান সমিতির সম্পাদক মাও. রফিকুল ইসলাম জানান, সি-ট্রাক দীর্ঘ দিন পর্যন্ত বন্ধ করে রাখা হলেও কেউ এ ব্যাপারে খোজ খবর নিচ্ছেন না। এর ফলে এ অঞ্চলের হাজার হাজার যাত্রী দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। শীঘ্রই সী ট্রাক সার্ভিস চালু করার দাবী জানান তিনি।
এ ব্যাপারে মনপুরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি মিসেস শেলিনা আক্তার চৌধূরী বলেন, সী ট্রাকের বিষয়টি নিয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে বারবার কথা হয়েছে। এরই মধ্যে সীট্রাক লাইনে আসার কথা। তবে কেন এখনো সেটি যাত্রী পারাপারে নিয়মিত হচ্ছে বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে তিনি জানান।