মদ্যপের কান্ডে রুপাতলীর বাস মালিকদের ধর্মঘটের ডাক, ক্ষমা প্রার্থনায় প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ নগরীর রূপাতলী এলাকার যুবলীগ নেতা পরিচয়ধারী মাতালের হাতে লাঞ্চিতের প্রতিবাদের বাস ধর্মঘটের ডাক দেয় বরিশাল-পটুয়াখালী মিনিবাস মালিক সমিতি। পরে ক্ষমা চাওয়ায় তা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়। রোববারের এই ঘটনার পর গতকাল সোমবার ধর্মঘট হওয়ার কথা ছিলো।
রুপাতলী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় নিজেকে নব্য যুবলীগের প্রভাবশালী নেতা দাবী করে সুরুজ মোল্লা নামে এক মাতাল। স্থানীয়রা জানায়, সে নগরীর ২৫ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর সুলতান মাহমুদের আত্মীয় এবং রূপাতলী এলাকার বাসিন্দা জব্বার মোল্লার ছেলে। বর্তমানে সে এলাকায় বেপরোয়া কর্মকান্ড করে। সুরুজ মোল্লা কোন কিছুর তোয়াক্কা না করেই এলাকায় একের পর এক অপকর্ম করে বেরাচ্ছে। এমনকি তিনি কোন কারন ছাড়াই নেশা করে রূপাতলীতে সামনে যাকে পাচ্ছে অকথ্য ভাষায় গালি দেয়।
শুধু তাই নয়, যুবলীগ নামধারী এই মাতাল সুরুজ প্রায় প্রতিনিয়ত কারন ছাড়াই রূপাতলী মিনিবাস মালিক সমিতির সামনে দাড়িয়ে অকথ্য ভাষায় গালি দেয়। দু’দিন পূর্বে সমিতির সদস্য কালু এর প্রতিবাদ করেন। এতে মাতাল অসুস্থ সুরুজ ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে লাঞ্ছিত করে। এর প্রতিবাদে আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয় মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ। এমনকি তারা ঈদের দ্বিতীয় দিন রূপাতলী থেকে সকল প্রকার বাস ধর্মঘটের ডাকও দেন।
খবর পেয়ে পুলিশ কর্মকর্তারা প্রাথমিক ভাবে বিষয়টি সমঝোতায় সমাধানের অনুরোধ করে। তখন ঈদে যাত্রীদের দুর্ভোগের কথা ভেবে বাস মালিকরা আন্দোলনের সিদ্ধান্ত বাতিল করেন। তবে পরবর্তীতে বাস মালিক সমিতি কার্যালয়ে এক সমঝোতা সভার মাধ্যমে সুরুজ মোল্লা নিজের ভুল শিকার করেন। ভবিষ্যতে এমন কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার অঙ্গীকার করে সকলের কাছে ক্ষমা চায়।