ভোলায় বিএনপির কর্মীসভার বাইরে সংঘর্ষ ॥ আহত-৮

ভোলা প্রতিবেদক ॥ ভোলায় বিএনপির সাংগঠনিক কর্মী সভার বাইরে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং ভিতরে হট্টগোলের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রোববার দুপুর সোয়া ১২ টায় সভাস্থলের বাইরে ( সদর রোডে) ভোলা-৪ আসনের সাবেক এমপি নাজিম উদ্দিন আলম ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য নুরুল ইসলাম নয়নের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ২ গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। আর দুপুরের পর জাতীয় নির্বাহী কমিটির ক্রীড়া সম্পাদক আমিনুল হকের বক্তব্য চলাকালে ভিতরে হট্টগোল করে বোরহানউদ্দিন ও দৌলতখানে বিএনপির কর্মী সমর্থকরা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানিয়েছে, ভোলা সদর রোডের হোটেল ক্রিস্টাল ইনে বিএনপির পূর্ব নির্ধারিত সাংগঠনিক প্রতিনিধি সভা শুরুর আগ মুহুর্তে নাজিম উদ্দিন আলম ও নুরুল ইসলাম নয়নের সমর্থকদের মধ্যে হট্টগোল বাঁধে। এক পর্যায়ে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়া এবং মোটর সাইকেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এসময় চরফ্যাশনের নেতাকর্মীদের সাথে জেলার তরুণ নেতাকর্মীরাও দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে সংঘর্ষে অংশ নিতে দেখা যায়। এতে চরফ্যাশন উপজেলা শ্রমিকদল সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও পৌর শ্রমিকদল সভাপতি মো. শাজাহান সহ ৮ জন আহত হয়। তবে বাইরে উত্তেজনা চললেও হোটেলের ভিতরে সাংগঠনিক সভার কার্যক্রম চালানো হয়। সভায় বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মজিবর রহমান সরোয়ার সহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে সভার মাঝামাঝি সময় সাবেক ফুটবলার ও বিএনপির ক্রীড়া সম্পাদক আমিনুল হক বক্তব্য শুরু করলে বোরহানউদ্দিন ও দৌলতখান বিএনপির কর্মীরা হট্টগোল বাঁধায়। জেলা নেতৃবৃন্দের তড়িৎ হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এসব হামলা সংঘর্ষের জন্য একে অপরকে দায়ী করে সভায় বক্তব্য রাখেন। তবে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সরোয়ার বিরোধ ভুলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান।

জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীরের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. বিলকিস আক্তর জাহান শিরিন, সাবেক এমপি নাজিম উদ্দিন আলম, সাবেক এমপি মো. হাফিজ ইব্রাহিম, বিএনপির ক্রীড়া সম্পাদক আমিনুল হক, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নুরুল ইসলাম নয়ন, হায়দার আলী লেলিন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ ট্রুমেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আমিনুল ইসলাম খান, যুগ্ম সম্পাদক হুমায়ুন কবির সোপান, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক, শ্রমিকদলের সভাপতি সহিদুল ইসলাম মানিক, ইয়ারুল আলম লিটন, খন্দকার আল আমিন সহ জেলা ও উপজেলা নেতৃবৃন্দ।

ভোলা সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মীর খায়রুল কবির জানিয়েছেন, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আইন শৃঙ্খলারক্ষায় উত্তেজিত নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়েছে।