ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ জেলা ও মহানগরে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে নগরী এবং জেলার প্রতি উপজেলা পর্যায়ে ৬ মাস থেকে ৫ বছর বয়সি শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে।
এর পূর্ব গতকাল সকালে নগরীর জুমির খান সড়কে আখতার-আমজাদ নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বিসিসি’র ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনের কার্যক্রম উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিসেফ’র বিভাগীয় প্রধান এ.এইচ তৌফিক আহম্মেদ, বিভাগীয় স্বাস্থ্য অফিসের সহকারী পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস, ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মেহেদী পারভেজ খান আবির, বিসিসি’র প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মতিউর রহমান প্রমুখ।
এই দিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সিটির ৩০টি ওয়ার্ডের ৬ মাস থেকে ১১ মাস বয়সের ৪ হাজার ৫৬১ জন, ও ১ বছর থেকে ৫ বছর বয়সের ৪১ হাজার ৩৫৯ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়। ৩০ টি ওয়ার্ডে ২২০ টি কেন্দ্রে বিসিসি’র স্বাস্থ্য বিভাগ, আরবান প্রাইমারী হেলথ কেয়ার সার্ভিসেস ডেলিভারী প্রকল্প, এফপিএবি, রোটারী ক্লাব, সূর্যের হাসি ক্লিনিক, ব্র্যাক, চন্দ্র দ্বীপ, উদয়ন পাঠাগার, সিডিসি, সেইন্ট বাংলাদেশ, গার্লস গাইড, ওআরডিপি, সদর হাসপাতাল, শের-ই-বাংল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ডেভ, পলাশি ক্লাব, এইচআরডিপি, ওডিপি, ওর্য়াল্ড ভিশন ,অপরাজেয় বাংলা, রেডক্রিসেন্ট হাসপাতাল, মেরী স্টোপস ক্লিনিক, এফ ডব্লিউ ভিটি আই, সেন্ট এ্যানেস মেডিকেল সেন্টার এবং স্কুলের শিক্ষক সহ ৩৫ টি প্রতিষ্ঠানের ৬৯০ জন কর্মী বিসিসি’র ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন সফলে অংশগ্রহন করেন।
এদিকে সকাল ৯টায় বরিশাল জেলা পর্যায়ের ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বরিশাল জেলার সিভিল সার্জন ডা. এটিএম মিজানুর রহমান। লাকুটিয়া এলাকার শার্ষী প্রাইমারী স্কুলের অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাইয়ে কার্যক্রমের উদ্বোধন কালে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য বিভাগ ও জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের চিকিৎসক এবং ইপিআই কর্মকর্তারা।
সিভিল সার্জন কর্তৃপক্ষ বরিশাল জেলার ১০ উপজেলায় ৬ থেকে ৫৯ মাস বয়সি ২ লক্ষ ৯১ হাজার ৯০৭ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ মাত্রা নিয়ে শনিবার কার্যক্রম শুরু করেন। এজন্য জেলার ১০ উপজেলার ৮৫টি ইউনিয়ন, ২৫৫টি ওয়ার্ড ২ হাজার ৪০টি অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র এবং প্রতি ইউনিয়নে ১টি, লঞ্চঘাট, খেয়া ঘাট, বাসষ্টান্ড ও ফেরিঘাট সহ প্রতিটি উপজেলা পর্যায় ৩টি করে অতিরিক্ত টিকাদান সহ মোট ২ হাজার ১৫৫টি টিকাদান কেন্দ্রে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে ৩জন স্বেচ্ছাসেবক, ওয়ার্ড পর্যায়ে ২ জন করে মাঠ কর্মী এবং ১জন করে প্রথম সারির সুপারভাইজার এই কার্যক্রমে অংশগ্রহন করেন।