ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব নিলেন কে.এম. শহীদুল্লাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ উষ্ণ সংবর্ধনার মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব বুঝে নিলেন প্যনেল মেয়র ১ ও নগরীর ১২নং ওয়ার্ডের দীর্ঘদিন ধরে নির্বাচিত কাউন্সিলর আলহাজ্ব কেএম শহীদুল্লাহ। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছ থেকে ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব বুঝে নেন তিনি।
এদিকে আলহাজ্ব কেএম শহীদুল্লাহ ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করায় তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছে কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।
এদিকে ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহনের পরে সিটি কাউন্সিলরদের সাথে বৈঠক করেছেন কেএম শহীদুল্লাহ। এসময় তিনি নির্বাচিত সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামালের অবর্তমানে সকল প্রকার উন্নয়ন কার্যক্রম এবং দায়িত্ব পরিচালনার জন্য কাউন্সিলরদের সহায়তা কামনা করেন। একই সাথে নগরীকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে নগরবাসীর সহযোগিতা চান তিনি।
উল্লেখ্য গত মঙ্গলবার একটি সেমিনারে অংশ নিতে ভিয়েতনামের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন নির্বাচিত মেয়র মোঃ আহসান হাবিব কামাল। সেমিনার শেষে আগামী ৪ ডিসেম্বর দেশে ফিরবেন তিনি।
এদিকে তার অনুপস্থিতিতে নগরীর উন্নয়ন কার্যক্রম চালিয়ে যেতে নিয়ম অনুযায়ী ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব দিয়েছেন ১নং প্যানেল মেয়র আলহাজ্জ কেএম শহীদুল্লাকে। তিনি আগামী ৮ দিন ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।
দায়িত্ব পাওয়ার পর তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র দাস ও উপস্থিত কাউন্সিলররা। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিটির ১৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ মোশারেফ আলী খান বাদশা, প্যানেল মেয়র ৩ শরীফ তাসলিমা কামাল পলি, কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান টিপু, জয়নাল আবেদীন, মোঃ শহীদুল ইসলাম তালুকদার, মোঃ নূরুল ইসলাম, সংরক্ষিত কাউন্সিলর জাহানারা বেগম, মাহমুদা আক্তার মিতু, কামরুন্নাহার রোজী, সালমা আক্তার শিলা ও কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ । উল্লেখ্য বার বার নির্বাচিত জনপ্রিয় কাউন্সিলর আলহাজ্ব কেএম শহীদুল্লাহ গতকাল প্রথমবারের মত ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব গ্রহন করেন।
এছাড়াও নগরীর ১১, ১২, ১৩ ও ১৪ নম্বর সহ বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে আসা কেএম শহীদুল্লাহ’র কর্মী সমর্থকরা নগর ভবনে তাকে শুভেচ্ছা জানান।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে সিটি নির্বাচনে বিপুল ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে পরাজিত করেন নগরীর ১২ নম্বর ওয়ার্ডের একাধিকবার নির্বাচিত কাউন্সিলর কেএম শহীদুল¬াহ। পরবর্তীতে বর্তমান সিটি পরিষদ নির্বাচনের পরে কাউন্সিলরদের ভোটে প্যানেল মেয়র-১ নির্বাচিত হন তিনি। এছাড়া শওকত হোসেন হিরন মেয়র থাকা কালে বিসিসি’র নির্বাচিত প্যানেল মেয়র-২ ছিলেন কেএম শহীদুল¬াহ। তিনি এক যুগ ধরে ১২ নম্বর ওয়ার্ডে সফলতার সাথে জনপ্রতিনিধিত্ব করে আসছেন। তার জনপ্রিয়তার কাছে প্রতি নির্বাচনেই
পরাস্ত হয়ে আসছেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা। কেননা তিনি একজন কাউন্সিলর হলেও সাধারণ মানুষের সুখে দুঃখে তাদের পাশে গিয়ে দাঁড়ান। যার ফলে তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী যেই হোক না কেন কেএম শহীদুল্লাহ’র জনপ্রিয়তার কাছে পরাজিত হচ্ছেন।