ভারত বাংলাদেশকে সহযোগীতা করেতে সব সময় প্রস্তুত-ভারত হাই কমিশনার

মোঃ কবির খান, ভান্ডরিয়া ॥ ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেন, ভান্ডারিয়ার বহুমাত্রিক জনগণ একসাথে বসবাস করতে দেখে আমি আনন্দিত। ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর উৎসাহে বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে ভারতীয় সৈনিকদের রক্তদান দুই দেশের ঐক্যের একটি বড় অধ্যায়। ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দেরাগান্দীর সময় বাংলাদেশ ভারতের সম্পের্কের যে বীজ বপন করেছে বর্তমান সরকারের সময় এ সম্পর্ক আরো উন্নততর পর্যায় পৌছাছে। ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা আজ দুুপুরে ভারত সরকারের অর্থায়নে মজিদা বেগম মহিলা কলেজ প্রাঙ্গনে ভান্ডারিয়া পৌরসভায় সুপেয় পানি প্রকল্পের কাজের উদ্বোধন শেষে সুধি সমাবেশবিশেষ অতিথি হিসেবে এ কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, ভারত বাংলাদেশকে সহযোগীতা করেতে সব সময় প্রস্তুত। আমরা একে অপরের পাশে থাকবো বলে ভারত সরকারের অর্থায়ণে বাংলাদেশে ১ হাজার ১ শত কোটি টাকার বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ আগামী ২০১৮ সালে শেষ হবে। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী কিছু দিন আগে ঢাকায় ১ শত ২০ কোটি টাকার ২৪ টি প্রকল্প উদ্বোধন করেছে, এরই আওতায় ভান্ডারিয়া পৌরসভায় সুপেয় পানি প্রকল্পের পূর্বের বরাদ্ধ কৃত ১১ কোটি ৫০ লক্ষ টাকার সাথে এবারে আরো ২ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়। সম্প্রদায়িক সম্প্রদায়ের দেশ বাংলাদেশের মধ্যে ভান্ডারিয়া উপজেলায় সম্প্রদায়িক সম্প্রদায়ের ভূয়শী প্রশংসা করেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিধি হিসেবে উপস্থিত পরিবেশ ও বন মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা ভান্ডারিয়াবাসী দলমত ধর্ম নির্বিশেষে একত্রে বসবাস করছি। তাই দেশের উন্নয়নের জন্য পুরানো রাজনীতিবাদ দিয়ে নতুন রাজনীতির ধারায় চলতে হবে।
স্বাধীনতার পূর্বের রাজনীতি আর বর্তমান রাজনীতি এক নয়। আমি উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাসী। আমি আজ গর্বিত সব সরকারের আমলে ভান্ডারিয়ায় যে পরিমান উন্নয়ন হয়েছে অন্য কোন উপজেলায় এ উন্নয়ন হয়নি।
আসন্ন নির্বাচন সম্পের্কে মন্ত্রী বলেন, আপনারা যাকে খুশি তাকে ভোট দিবেন। আমাকে ভোট দিতে বলছি না। কিন্তু একৌবদ্ধ্য ভাবে দলমত নির্বিশেষে কাজ করতে হবে।
পিরোজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ খায়রুল আলম শেখ, পুলিশ সুপার মোঃ সালাম কবির, উপজেলা চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম উজ্জল তালুকদার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভান্ডারিয়া পৌর প্রশাসক শাহীন আক্তার সুমী, উপজেলা জেপি’র যুগ্ম আহবায়ক ও পৌর কাউন্সিলর গোলাম সরওয়ার জমাদ্দার, জেপি’র উপজেলা সদস্য সচিব ও ধাওয়া ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান টুলু, আওয়ামী লীগ নেতা হাফিজুর রশিদ তারেক ও উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি কিরন চন্দ্র বসু।
এসময় মঞ্চে ছিলেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ইত্তেফাকের প্রকাশক তারিন হোসেন, ভারতীয় দূতাবাসের ফার্স্ট সেক্রেটারী নবনিতা চক্রবর্তী, প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রতিষ্ঠান আয়ন এক্সচেঞ্জ’র ভাইস প্রেসিডেন্ট এমজে শেখ, উপজেলা জেপি’র আহবায়ক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম মনি জমাদ্দার প্রমুখ।