ব্লাস্ট কার্যালয়ে অগ্নিকান্ডে পুড়েছে মামলার ও শালিসের নথিসহ আসবাবপত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাস্টের (ব্লাস্ট) জেলা ও দায়রা জজ আদালত চত্ত্বরের বিভাগীয় কার্যালয়ে অগ্নিকান্ডে মামলার নথিসহ আসবাপত্র পুড়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার দুপুর পৌঁনে ১টার দিকে বন্ধ কার্যালয়ের ভেতরে অগ্নিকান্ডে প্রায় ৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতির দাবি করেছে সংস্থা কতৃপক্ষ। তবে ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে, অগ্নিকান্ডে ২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
ব্লাস্টের ফিন্যান্স এন্ড এ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অফিসার সাবিনা নাজনীন জানান, সরকারী ছুটির দিন হওয়ায় অফিস বন্ধ ছিল। বেলা পৌঁনে ১টার দিকে সহকর্মীদের কাছ থেকে খবর পেয়ে অফিসে এসে দেখেন ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করছে। আগুন নিয়ন্ত্রনে আসার আগেই অফিসে থাকা ২০০০ হাজার মামলা এবং ৪০০ শালিসের নথি, ৪টি কম্পিউটার, ৪টি ফ্যান, আইনের বই, প্রশাসনিক এবং হিসাব সংক্রান্ত যাবতীয় কাগজপত্র পুড়ে গেছে। বন্ধ অফিসে কিভাবে আগুন লেগেছে তা বলতে পারেননি তিনি।
ব্লাস্টের স্টাফ আইনজীবী এ্যাড. শাহিদা তালুকদার জানান, সুবিধা বঞ্চিত মানুষকে বিভিন্ন আইনী সহায়তা এবং পারিবারিক ও সামাজিক সমস্যা শালিসের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করা ব্লাস্টের বিভাগীয় কার্যালয়ের কার্যক্রম ৯৪ সাল থেকে শুরু হয়। জেলা জজ আদালত চত্ত্বরের আইনজীবী সমিতির একটি পুরনো ভবনের দুটি কক্ষে তাদের কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছিল। সরকারের অর্থায়নে আইনজীবীদের সহায়তায় এই সংস্থার কার্যক্রম পরিচালিত হয়। আগুনে মামলা এবং শালিসের নথিগুলো পুড়ে যাওয়ায় মামলা পরিচালনা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।
ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. আলাউদ্দিন বলেন, এটা নাশকতা নয়। ধারনা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়েছে। তদন্ত করে আগুনের প্রকৃত কারন জানা যাবে বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের এই কর্মকর্তা।
অগ্নিকান্ডের পর জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল আলম, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. আদীব আলী, দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের বিচারক দিলীপ ভৌমিক, দ্বিতীয় যুগ্ম জেলা জজ মো. আশরাফুল ইসলাম, আইনজীবী সমিতির সভাপতি আনিসউদ্দিন আহম্মেদ শহীদ, সম্পাদক কাজী মুনিরুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।