ব্রাউন কম্পাউন্ডে হামলা-ভাংচুরের ঘটনায় গ্রেপ্তাকৃত ৯ ছাত্র কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নগরীর ব্রাউন কম্পাউন্ডের আবাসিক এলাকায় সশস্ত্র হামলা, ভাংচুর এবং কুপিয়ে জখমের অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া বিভিন্ন স্কুল এবং কলেজের ৯ ছাত্রকে জেল হাজতে প্রেরন করেছে আদালত। গতকাল শুক্রবার বিকালে কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ গ্রেপ্তারকৃতদের বরিশালের মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করলে বিচারক মো. আনিসুর রহমান তাদেরকে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দেন।
কারাগারে প্রেরনকৃত ৯ ছাত্র হলো, সৌরভ বালা, সাগর হাওলাদার, রিফাতুল ইসলাম, তানভির আহসান জিয়াদ, শোভন বিশ্বাস, তৌসিক হাওলাদার, নাজিম উদ্দিন রাতুল, আব্দুল্লাহ আল তামিম এবং আরমান শরীফ। এর মধ্যে সৌরভ বালা বাদে সবাই বরিশালের বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র। এছাড়া হামলা এবং ভাংচুরের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার বাকি চার আসামী স্কুল ছাত্র হাসান, অর্নব এবং শুভ গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পালাতক ছিলো বলে জানিয়েছেন কোতয়ালী মডেল থানার এসআই আবু তাহের।
এর পূর্বে নগরীর উদায়ন স্কুলের এক ছাত্রকে মারধরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত বুধবার সন্ধ্যায় কালবৈশাখী ঝড়ের সময় নগরের আবাসীক ব্রাউন কম্পাউন্ড এলাকায় সশস্ত্র মহরা দিয়ে ঘর বাড়িতে হামলা এবং ভাংচুর চালায় চারটি স্কুল এবং সরকারি হাতেম আলী কলেজের কয়েক ছাত্র। এর আগে তারা জিলা স্কুলের মোড়ে সদর রোডের মামুন মাইক এর কর্মচারী নুরুল আলম ও রাসের নামে দু’জনকে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। ভাংচুরের সময় এলাকাবাসী ধাওয়া করে হামলার নেতৃত্ব দেয়া হাতেম আলী কলেজের ছাত্র সৌরভ বালা এবং তার সহযোগি স্কুল ছাত্র সোহাগ হাওলাদারকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।
কোতয়ালী মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই আবু তাহের বলেন, হামলা এবং ভাংচুরের ঘটনায় ব্রাউন কম্পাউন্ড এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী খলিলুর রহমান সুমন বাদী হয়ে ১৩ ছাত্র’র বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার সূত্র ধরে ঘটনার পর থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত টানা অভিযানে গ্রেফতারকৃত এক কলেজ ছাত্র সহ আট স্কুল ছাত্রকে শুক্রবার বিকালে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত তাদের করাগারে প্রেরনের নির্দেশ দেন। তাছাড়া গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত বাকি পালাতক আসামীদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।