ব্যস্ততম সদর রোড দখল করে ভবন নির্মাণ কাজে ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নগরীর সদর রোডে ব্যস্ততম সড়ক দখল করে ভবন নির্মাণ কাজ করছে দি বরিশাল ইসলামিয়া আরবান সমবায় সমিতি লিমিটেড কর্তৃপক্ষ। বিসিসি কর্তৃপক্ষের কোন প্রকার অনুমতি না নিয়ে গতকাল শুক্রবার দিনভর রাস্তায় ইট পাথরের সুড়কি ফেলে জনসাধারণের চলাচলে বিঘœ ঘটিয়েছে। পাশাপাশি তীব্র যানজটের কারনে সীমাহীন ভোগান্তির শিকার হতে হয় যানবাহনের যাত্রী এবং পথচারীরা।
এদিকে রাস্তা দখল করে ভবন নির্মাণ কার্যক্রম পরিচালনা নিয়ে বিসিসি এবং সমবায় সমিতি কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে পাল্টা পাল্টি বক্তব্য পাওয়া গেছে। বিসিসি কর্তৃপক্ষ অনুমতি ছাড়া কাজ করছে বলে দাবী করলেও সমিতির নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন অনুমতি নিয়েই তারা বহুতল ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করছেন।
সরেজমিনে দেখাগেছে, নগরীর সদর রোডে বিবির পুকুরের পশ্চিম পাড়ে বাটার গলির প্রবেশ মুখে দীর্ঘ দিন ধরে বহুতল ভবন নির্মাণের কাজ চলছে। দি বরিশাল ইসলামিয়া আরবান সমবায় সমিতি লিমিটেড’র এই ভবনিটি নির্মাণ কাজ শুরুর পর থেকে বিভিন্ন সময় গুরুত্বপূর্ণ সড়ক দখল করে রাখে। সড়কের বিশাল অংশ নিয়ে ইট, পাথর, বালু এবং রড ফেলে জনসাধারণের চলাচলে বিলম্ব সৃষ্টি করছেন তারা।
এর ধারাবাহিকতায় গতকাল শুক্রবার একই ভাবে সদর রোডের ব্যস্ততম সড়কের অর্ধেকের বেশি অংশ জুড়ে বালু এবং ইট-পাথরের সুরকি ফেলে ভবনের নিচতলায় ঢালাই কাজ পরিচালনা করে। যে কারনে গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত গোটা সদর রোডে ব্যাপক যান জটের সৃষ্টি হয়। যেকোন যানবাহনে ১০ মিনিটের রাস্তা পার হতে প্রায় এক ঘন্টা সময় লেগে যায়। এমনকি পথচারীরাও হাটতে গিয়ে সীমাহীন ভোগান্তি এবং ময়লা আবর্জনা ছিটে জামা কাপড় নষ্ট হতে দেখা গেছে।
জানতে চাইলে দি বরিশাল ইসলামিয়া আরবার সমবায় সমিতির সদস্য আবু সুফিয়ান জানান, গতকাল শুক্রবার রাস্তায় মানুষ এবং যানবাহনের চাপ কম থাকে। এ কারনে বিসিসি, থানা এবং ট্রাফিক বিভাগে কাজের অনুমতির জন্য আবেদন করেই শুক্রবার ভবনের কাজ করেছেন। তিনি বলেন, আমার দেখা চোখে তাদের কাজের জন্য সাধারণ মানুষ কিংবা যানবাহন চলাচলে ভোগান্তি হয়নি।
তবে বরিশাল সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল বলেন, রাস্তা দখল করে ভবন নির্মাণের জন্য দি বরিশাল ইসলামিয়া আরবান সমবায় সমিতিকে কোন অনুমতি দেয়া হয়নি। তাছাড়া ভবন নির্মাণ করতে গিয়ে রাস্তায় যানজট সৃষ্টি না করার জন্য ইতোমধ্যে ঐ সমিতির সংশ্লিষ্টদের নোটিশ দিয়েছেন। এর পরেও কাজ না হলে পরবর্তীতে এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে মেয়র জানিয়েছেন।