ব্যক্তি নয়, নৌকার বিজয় হলে আওয়ামী লীগের বিজয় হবে-আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদিয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ -এমপি বলেছেন, সামনে দুটি গুরুত্বপূর্ন নির্বাচন। একটি স্থানীয় সরকারের অধীনে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন এবং অপরটি জাতীয় সংসদ নির্বাচন। দুটি নির্বাচনকেই আমাদের গুরুত্ব দিতে হবে। কেননা আওয়ামী লীগ নির্বাচনমুখী দল। সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দলকে জিতিয়ে আনা আমাদের দায়িত্ব। এজন্য তৃনমুল থেকে সংগঠনকে শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে হবে। পাশাপাশি নতুন সদস্য সংগ্রহের দিকেও সকলকে গুরুত্ব দিতে হবে।
গতকাল সোমবার নগরীর সার্কিট হাউস’র সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে সভাপতির বক্তৃতায় এসব কথা বলেছেন তিনি। জেলা ও মহানগর পর্যায়ে ইউনিট কমিটি গঠন, সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচি এবং ৩ নভেম্বর জেল হত্যা দিবস সহ অন্যান্য দিবস উদযাপনের বিষয় নিয়ে বিশেষ এই বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়। বেলা সোয়া ১১টা হতে বিকাল ৪টা পর্যন্ত দীর্ঘ সময়ের এই বর্ধিত সভায় আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ  এমপি আরো বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কর্মীবান্ধব একটি ঐতিহ্যবাহী সংগঠন। তাই সদস্য সংগ্রহের মধ্যে দিয়ে দলের কর্মী বাড়াতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে স্বাধীনতার বিপক্ষের কোন শক্তি যাতে আওয়ামী লীগের সদস্য না হতে পারে।
জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগকে ঢেলে সাজানো ও দলকে আরো শক্তিশালী করার বিষয়ে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দিয়ে আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ -এমপি বলেছেন, জেলা পর্যায়ে ওয়ার্ড এবং ইউনিয়ন ও মহানগর পর্যায়ে প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ সংগঠনের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে। যেসব ইউনিটে কমিটি নেই এবং যেসব ইউনিট কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে সেসব ইউনিট কমিটি দ্রুত গঠন করতে হবে। জেলা ও মহানগর পর্যায়ে যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহ অন্যান্য কমিটিগুলোর বিষয়েও বিশেষ গুরুত্ব দেন তিনি। সর্বোপরি আসন্ন জাতীয় সংসদ ও সিটি নির্বাচনের জন্য নেতা-কর্মীদের মানসিক ভাবে প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়ে আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ -এমপি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলেছে। বর্তমান সরকারের করা দেশের উন্নয়ন সম্পর্কে জনগনকে অবহিত করতে হবে। সরকারের ভালো দিকগুলো তাদের সামনে তুলে ধরতে হবে। দলের নাম ভাঙ্গিয়ে কিংবা দলের শৃঙ্খলা নষ্ট ও দল এবং সরকারের বদনাম হয় এমন সব কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে। দলের মনোনয়ন সবাই চাইতে পারে। কিন্তু দল থেকে যাকে মনোনীত করবে সেই নির্বাচনে প্রার্থী হবে। দল যাকে মনোনয়ন দিবে সেই প্রার্থীর পক্ষেই নিজের অবস্থানে থেকে কাজ করতে হবে। মনে রাখতে হবে ব্যক্তি নয়, নৌকার বিজয় হলে আওয়ামী লীগের বিজয় হবে।
বিশেষ বর্ধিত সভায় আসন্ন বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বরাবরের ন্যায় মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ কে দলীয় মনোনয়নের বিষয়ে জোর দেন জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। তারা বক্তৃতার মাধ্যমে সাদিক আবদুল্লাহ কে মনোনয়ন নিশ্চিত করার বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এবং দলের সভানেত্রী’র দৃষ্টি আকর্ষন করেন।
এছাড়াও তৃনমুল পর্যায় থেকে জেলা ও মহানগর পর্যায়ে সর্বাধিক নতুন সদস্য সংগ্রহ এবং নবায়নের বিষয়ে দিক নির্দেশনা ও আলোচনা করা হয়েছে। পাশাপাশি আগামী ৩রা নভেম্বর জেল হত্যা দিবস, ১০ নভেম্বর গনতন্ত্র রক্ষা দিবস সহ আগামী জানুয়ারী পর্যন্ত বিভিন্ন জাতীয় দিবস উদ্যাপনের বিষয়ে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে বর্ধিত সভার মাধ্যমে।
সভায় অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. তালুকদার মো. ইউনুস-এমপি, আওয়ামী লীগ নেতা মাহাবুব উদ্দিন আহম্মেদ-বীর বিক্রম, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহান আরা বেগম, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড. গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল, সাধারন সম্পাদক এ্যাড. একেএম জাহাঙ্গীর, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু, আমিনুল ইসলাম তোতা, আমির হোসেন তালুকদার প্রমূখ।
এছাড়াও জেলার ১০ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারন সম্পাদক, আ’লীগ দলীয় উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, বিসিসি’র ৩০ ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারন সম্পাদক এবং দলীয় কাউন্সিলরগন উপস্থিত ছিলেন।