বিড়ি শ্রমিকদের প্রতিবাদ সভা ও স্মারকলিপি পেশ

পরিবর্তন ডেক্স ॥ বৈষম্যমূলক শুল্কনীতির মাধ্যমে বিড়ি শিল্পকে ধ্বংসের প্রতিবাদসহ  সাত দফা দাবিতে নগরীতে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বিড়ি শ্রমিকরা। বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে এই কর্মসুচীর পর জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাচে স্মারকলিপি দিয়েছে তারা। গতকাল রোববার  নগরীর সোহেল চত্বরে প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক লোকমান হাকিম। কারিকর বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি প্রনব চন্দ্র দেবনাথের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন শ্রমিক আব্দুল হালিম হাওলাদার, কামাল শেখ, এনায়েত হোসেন ও ফিরোজ আহমেদসহ অন্যান্যরা। বক্তারা দেশের ২২ লাখ বিড়ি শ্রমিকের কর্মসংস্থান বিড়ি শিল্প রক্ষায় বিড়ির উপর ধার্য্যকৃত কর প্রত্যাহারের দাবি জানান। প্রতিবাদ সভা শেষে নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন নেতৃবৃন্দ। এদিকে একইভাবে একই সংগঠনের ডাকে ঝালকাঠির বিড়ি শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে। সকাল ১১ টায় পূর্বচাঁদকাঠিস্থ কার্যালয় থেকে বিড়ি শ্রমিক নেতা আসলামের নেতৃত্বে মিছিল বের হয়ে প্রেসক্লাবের সামনে এসে মানববন্ধনে মিলিত হয়। এসময় বক্তব্য রাখেন বরিশাল বিভাগীয় বিড়ি শ্রমিক নেতা মোঃ লাল মিয়া। মানববন্ধন শেষে মিছিল শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়। জেলা প্রশাসকের পক্ষে স্মারক লিপি গ্রহন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) একেএম সোহেল।
অপরদিকে উজিরপুরে একই দাবিতে কারিকর বিড়ি শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিল করে নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে। সকাল ১০টায় উপজেলার পুরান বাজার কারিকর বিড়ি শ্রমিকরা একটি বিশাল মিছিল নিয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা চত্বরে গিয়ে শেষ করে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কারিকর বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা ফারুক হোসেন হাওলাদার, মোতালেব হাওলাদার, ব্রাঞ্চ মালিক আশিষ কুমার মনা দাস, সাবেক শ্রমিকনেতা দুলাল হোসেন খান, জাহাঙ্গীর হোসেন হাওলাদার প্রমূখ।