বিষপানে মারা যাওয়া গৃহবধূর লাশ রেখে পলায়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিষপান করা এক গৃহবধূর লাশ ফেলে রেখে পালিয়ে স্বজনরা। গতকাল শনিবার দুপুর ২টার দিকে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ফেলে রেখে যায় তারা। ফলে গৃহবধূর পরিচয় বা ঠিকানা জানা যায়নি। তবে যারা লাশটি জরুরী বিভাগে রেখে গেছে তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী লাশের নাম লিপি আক্তার। তার আনুমানিক বয়স ২৮ বছর।
হাসপাতালের ওয়ার্ড মাষ্টার আবুল কালাম আজাদ পরিবর্তনকে জানান, শনিবার দুপুর ২টার দিকে লিপি আক্তারকে বিষপান করা অবস্থায় জরুরী বিভাগে নিয়ে আসে স্বজনরা। এসময় তারা একটি টিকেট কিনে তাতে নাম লেখায় লিপি আক্তার।
তিনি আরো জানান, জরুরী বিভাগের চিকিৎসক লিপিকে দেখার পরে তিনি তাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন। সেই সাথে তার ব্যবস্থাপত্র (টিকেট) চিকিৎসকের নিকট নিয়ে যান। সেই সুযোগে লাশটি নিয়ে আসা স্বজনরা জরুরী বিভাগে লাশ ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে জরুরী বিভাগ থেকে লাশটি উদ্ধার করে লাশ ঘরে রাখা হয়েছে। রাতে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লিপি নামের গৃহবধূর লাশ নিতে তার স্বজনরা কেউ আসেনি বলে নিশ্চিত করেছেন রাতে দায়িত্বরত ওয়ার্ড মাষ্টার আজাহার উদ্দিন। তিনি জানিয়েছেন, লাশটি কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। তারা আজ লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।
এদিকে জরুরী বিভাগের প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লাশটি জখন জরুরী বিভাগে নিয়ে আসা হয় তখন তার সাথে দু’জন পুরুষ লোক ছিলো। দেখে মনে হয়েছিলো তারা দু’জনই হতাশ এবং আতংকিত। চিকিৎসক মৃত ঘোষনার পর ব্যক্তিদ্বয় গাড়ি ভাড়া দেয়ার কথা বলে জরুরী বিভাগের সামনে গেলে এর পর আর ফিরে আসেনি। প্রত্যক্ষদর্শীদের ধারনা লিপি নামে গ্রহবধূকে বিষপান করিয়ে হত্যা করে লাশ হাসপাতালে রেখে পুলিশের আতংকে পালিয়ে গেছে স্বজনরা। এমনকি এই ঘটনার সাথে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির স্বজনরা জড়িত থাকতে পারে বলেও ধারনা করেছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।