বিভাগের শ্রেষ্ঠ ৫ জয়ীতাকে সম্মাননা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ “জয়ীতা অন্বেষণে বাংলাদেশ কর্মসূচির” আওতায় বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ ৫ জয়ীতাকে সম্মাননা দেয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় নগরীর অশ্বিনী কুমার হলে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর বরিশাল’র উদ্যোগে এবং বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের সহযোগীতায় এই সম্মাননা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে পাঁচ ক্যাটাগরীতে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী বিভাগের ৫ জয়িতাকে অনুষ্ঠানে সম্মাননা দেয়া হয়। বিভাগীয় কমিশনার মো. গাউস এর সভাপতিত্বে সম্মাননা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বরিশাল সদর-৫ আসনের সাংসদ জেবুন্নেছা আফরোজ। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান। এছাড়া সদর উপজেলার মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাসরিন আক্তারের এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রাশিদা বেগম। অনুষ্ঠানে জেলা পর্যায় থেকে ৫টি ক্যাটাগরীতে নির্বাচিত হওয়া ৬ জেলার ৩০ জন জয়িতা এ প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করেন। এদের মধ্যে থেকে ৫ ক্যাটাগরীতে ৫ জন শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত হন। বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ জয়িতারা হলেন, অর্থনৈতিক ভাবে সাফল্য অর্জণকারী নারী বরিশাল নগরীর গোড়াচাঁদ দাস রোডের বাসিন্দা বিলকিছ আহমেদ লিলি, সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় বরিশাল নগরীর কাউনিয়া ব্রাঞ্চ রোডের বাসিন্দা নিগার সুলতানা হনুফা, শিক্ষা এবং চাকরি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী বরগুনার মাহমুদা খাতুন, পিরোজপুরের সফল জননী নারী লুৎফুন্নেছা বেগম ও নির্যাতনের বিভিষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোমে জীবন শুরু করা নারী ভোলার চরফ্যাশনের বিবি তাজেরা। আলোচনা পর্ব শেষে নির্বাচিত জয়িতাদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা, ক্রেষ্ট এবং সনদপত্র প্রদান করা হয়। এদিকে জেলা পর্যায় থেকে বিভাগীয় পর্যায়ে অংশ গ্রহনকারী জয়ীতারা হলেন, অর্থনৈতিক ভাবে সাফল্য অর্জণকারী ক্যাটাগরিতে ঝালকাঠির কানিজ ফারজানা, পটুয়াখালীর জায়েদা আক্তার, পিরোজপুরের লিপিকা দেবনাথ, ভোলার আয়শা বেগম, বরগুনার বিলকিস। শিক্ষা এবং চাকরী ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী নারী ক্যাটাগরিতে বরিশালের সাহানা আক্তার শেলী, ঝালকাঠির শিমুল সুলতানা হেপি, পটুয়াখালীর শিরিন নাহার, পিরোজপুরের শিপ্রা মন্ডল, ভোলার নাসরিন। সফল জননী নারী ক্যাটাগরিতে বরিশালের প্রফুল্লা রানী ভক্ত, ঝালকাঠির হাসিনা জামান, পটুয়াখালীর মোসা. গোলবানু, ভোলার মমতাজ বেগম, বরগুনার কহিনুর বেগম। নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোগে জীবন শুরু করা নারী ক্যাটাগরিতে বরিশালের সাহাজাদী আরজু, ঝালকাঠির সখিনা বেগম, পটুয়াখালীর লাবনী রানী পাল, পিরোজপুরের মোসা. লাকি বেগম, বরগুনার মোসা. জয়নব। সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখা নারী ক্যাটাগরিতে ঝালকাঠির ফাতিমা জাহান রুনু, পটুয়াখালীর মাহফুজা ইসলাম, পিরোজপুরের নুরজাহান বেগম দুলু, ভোলার রোশনা বেগম, বরগুনার মাধবী দেবনাথ। অংশগ্রহনকারী ২৫ জন জয়িতাকে ২ হাজার টাকা, ক্রেস্ট এবং সনদপত্র প্রদান করা হয়েছে। এদিকে জেলা পর্যায় থেকে বিভাগীয় পর্যায়ে জয়ীতা নির্বাচন কার্যক্রমে বিচারক হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করেন, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রাশিদা বেগম, ইউনিসেফ বরিশাল বিভাগীয় প্রধান এএইচএম তৌফিক আহমেদ, সমাজ সেবা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. কেএম আক্তারুজ্জামান তালুকদার, আভাসের নির্বাহী পরিচালক রহিমা সুলতানা কাজল, অধ্যাপিকা শাহ সাজেদা, যুব উন্নয়ন অধিপ্তরের সহকারী পরিচালক সোয়েব ফারুক। বিভাগীয় পর্যায়ে জয়ীতা নির্বাচন কার্যক্রমের সঞ্চালনা করেন বিভাগীয় কমিশনার মো. গাউস। উল্লেখ্য, “জয়ীতা অন্বেষণে বাংলাদেশ কর্মসূচির” আওতায় বরিশাল বিভাগের ৪২ উপজেলা থেকে ৫ টি ক্যাটাগরিতে ৯০০ জন জয়ীতা অংশ গ্রহন করে ছিলেন। যার মধ্যে বরিশাল জেলার (১০ উপজেলা) ২৫০ জন, ভোলা জেলার (৭ উপজেলা) ৩৪০ জন, বরগুনা জেলার (৬ উপজেলা) ২১২ জন, পটুয়াখালী জেলার (৮ উপজেলা) ১১৮ জন, ঝালকাঠি জেলার (৪ উপজেলা) ২৯ জন, পিরোজপুর জেলার (৭ উপজেলা) ১৫১ জন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল মেট্রোপলিটান পুলিশের সিনিয়র সহকারী কমিশনার শাহনাজ পারভীন, মুক্তিযোদ্ধা আক্কাস হোসেন, মানবাধিকার জোটের সভাপতি ডা. হাবিবুর রহমান, উন্নয়ন সংগঠক আনোয়ার জাহিদ, বরিশাল জেলা মহিলা পরিষদের সাধারন সম্পাদক পুষ্প চক্রবর্তী, উন্নয়ন সংগঠক হাসিনা বেগম নিলা, শুভংকর চক্রবর্তীসহ বিভাগের ৬ জেলা ও উপজেলার মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাবৃন্দ।