বিপুল পরিমান ফেন্সিডিলসহ আটক-১

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ বিমানবন্দর থানা পুলিশের সফল অভিযানে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করতে সক্ষম হলেও পালিয়ে পিকাপ চালক সহ ৫ জন। গত ১লা মে শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ মো. মতিয়ার রহমান ও উপ-পরিদর্শক (এসআই) শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে রহমতপুর ক্যাডেল কলেজ সংলগ্ন মোহনগঞ্জ বাজারে এই সফল অভিযান পরিচালনা করেন। এ ঘটনায় উপ-পরিদর্শক শফিক বাদি হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এতে গ্রেফতারকৃত ফেন্সি ব্যাবসায়ী নগরীর নথুল্লাবাদ শাহ পড়ান সড়কের ভাড়াটিয়া বাসিন্দা মো. বাবু সহ ৪ জনার নামে ও এক জনকে অজ্ঞাতনামা সহ মোট ৬জনকে আসামী করা হয়েছে। আটক বাবু বানারীপাড়া উপজেলার মাদারকাঠি গ্রামের এমএ মজিদের ছেলে।
থানার এসআই শফিকুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারেন সীমান্ত এলাকা থেকে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিলের চালান নগরীতে নিয়ে আসা হচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের বিমানবন্দর থানা এলাকায় পুলিশ পিকআপ ভ্যান থামানোর জন্য গতিরোধের চেষ্টা করে। এসময় ঐ পিকাপটি দ্রুত গতিতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।
এদিকে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পিকাপটি ক্যাডেট কলেজ সংলগ্ন বাইপাস সড়ক হয়ে পালাবার চেষ্টা করে। এসময় পিকাপ থেকে ৫ জন পালিয়ে গেলেও মোহনগঞ্জ বাজার থেকে বাবুকে একটি পিকআপ ও ১ হাজার ৩০৩ বোতল ফেন্সিডিল সহ আটক করে পুলিশ।
বাবুর বরাত দিয়ে এসআই শফিক জানান, বাবু সহ ৫ জন মাদক ব্যবসায়ী, বাকি একজন পিকাপ চালক। তবে চালকের নাম জানাতে পারেনি আটক বাবু। তার পরেও চালককে মামলায় অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে।
বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত পরিদর্শক (ওসি) মতিয়ার রহমান জানান, আটকৃত বাবু সহ পালাতকরা দীর্ঘ দিন ধরেই যশোর সহ সিমান্তবর্তী এলাকা থেকে ফেন্সিডিল এনে বরিশালে বিক্রি করে আসছিলো। অতঃপর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সিন্ডিকেটের একজন সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয়েছেন। এই ঘটনায় এসআই শফিক বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন বলেও জানান ওসি।