বিধবা দুই সন্তানের জননীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নগরীর ৪ নম্বর ওয়ার্ডের শফি মিয়ার গ্রেজ এলাকার পঞ্চায়েত বাড়ি থেকে দুই সন্তানের জননী বিধবা গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। গতকাল সোমবার বেলা ১১ টার দিকে ঝুলন্ত অবস্থায় বিধবা রুনা আক্তার লিমা’র (৩৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে ওই বাড়ির মৃত জাকির হোসেন সেন্টুর স্ত্রী।
কাউনিয়া থানার এসআই শাহ মো. ফয়সাল বলেন, সকালে নিজ ঘরের আড়ার সাথে ওড়না দিয়ে ফাঁস দেয়া ঝুলন্ত লিমার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা আলামত ও লাশের ধরন দেখে বিষয়টি আত্মহত্যা বলে ধারনা করা হচ্ছে। তবুও ময়না তদন্ত করা করা হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যাবে বলেন এসআই ফয়সাল।
তিনি আরো জানান, আনুমানিক ৫ থেকে ৬ মাস পূর্বে লিমার স্বামী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুর পর সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া কন্যা ও তৃতীয় শ্রেণিতে পড়–য়া ছাত্র ছেলে সন্তানকে নিয়ে থাকতো।
সকালে কন্যা স্কুলে যাওয়ায় বাসায় সে ও ছেলে ছিল। তাকে ঘর থেকে খেলতে পাঠিয়ে প্রথমে ফ্যানের সাথে ওড়না দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। উচ্চতা কম হওয়ায় সেখানে ব্যর্থ হয়ে পাশের কক্ষের আড়ার সাথে ওড়না দিয়ে চেয়ারের উপর দাড়িয়ে আত্মহত্যা করেছে। এতে চেয়ারের একটি পায়া ভেঙ্গেও গেছে। আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে এখনও কোন তথ্য উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।
তবে প্রতিবেশিরা জানিয়েছে, স্বামীর মৃত্যুর পর দুই সন্তানসহ নিজের অনিশ্চিত ভবিষ্যতের চিন্তা ও গত কয়েকদিন ধরে শারীরিক অসুস্থতার কারণে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছিল সে। রোববার রাতে মাথার অসুস্থতার চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকের শরনাপন্ন হয়। চিকিৎসা শেষে গভীর রাতে বাসায় ফেরে।
ধারনা করা হচ্ছে মাথায় বড় ধরনের কোন রোগ ধরা পড়েছে। চিকিৎসা ব্যয়বহুল হওয়ার কারণে হতাশা থেকেও আত্মহত্যা করতে পারে।