বিদায়ী সংবর্ধনায় সিক্ত পুলিশ কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল মেট্রোপলিটান পুলিশের কমিশনার এস এম রুহুল আমিনকে বিদায়ী সংবর্ধনা দিয়েছে মহানগর কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি। গতকাল বুধবার বিকেলে নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হলে মহানগর কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির আহবায়ক বিজয় কৃষ্ণ দে এর সভাপতিত্বে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংবর্ধিত ব্যাক্তি পুলিশ কমিশনার এস এম রুহুল আমিন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো. আবুল কালাম আজাদ, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিন) গোলাম রউফ খান, উপ-পুলিশ কমিশনার (সিটিএসবি) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন মল্লিক, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র কে এম শহিদুল্লাহ, বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সচিব আলমগীর খান আলো, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সচিব নুরুল আলম নুরু, কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির মহানগরের সদস্য সচিব মাহমুদুল হক খান মামুন, উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা আক্কাস হোসেন, সদর উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রেহানা বেগম, নথুল্লাবাদ বাস মালিক গ্রুপের সভাপতি আফতাব হোসেন, বন্দর থানা কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি একে এম আজিজুর রহমান, কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান টিপু, মজিবর হোসে, সাবেক কাউন্সিলর এটিএম শহিদুল্লাহ কবির, রুপাতলী মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি আজিজুর রহমান শাহিন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার আবু সাঈদ খান, ফরহাদ হোসেন, মো. আসাদুজ্জামান, মহানগর পুজা উদযাপন কমিিিটর সভাপতি নারায়ন চন্দ্র দে নারু, মানিক মুখার্জী কুডুসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।
বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, আমরা বরিশাল বাসী এক সৎ, ন্যায় ও নিষ্টাবান পুলিশ অফিসার পেয়েছিলাম। যার কর্মদক্ষতা এবং জিরো টলারেন্স ভূমিকার ফলে মহানগরীর এলাকায় অপরাধমুলক কর্মকান্ড বেশ অনেকাংশে কমে গিয়েছে। তাছাড়া স্থানীয় সমস্যা সমাধানে কমিউনিটি পুলিশিং ব্যবস্থা জোরদার করার পর এই মহানগরীর আইন শৃংঙ্খলার চিত্র পরিবর্তণ হয়েছে। কমেছে অপরাধের সংখ্যা এবং সাধারন মানুষ নিশ্চিন্তে বসবাস করতে পারছে। অসহায় মানুষের সহযোগীতাসহ নানা রকম সমাজ উন্নয়নে তার ভূমিকা ছিল অতুলনীয়। এছাড়াও সারাবাংলাদেশে যখন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ কর্মকান্ড সৃষ্টি হয়েছিল। তখন এই বরিশালকে জঙ্গিবাদ মুক্ত রাখতেও ভূমিকা ছিল। আর এই সব সফলতার পিছনে যে ব্যাক্তিটির মহান ভূমিকা রয়েছে তিনিই হলেন পুলিশ কমিশনার এস এম রুহুল আমিন। ন্যায় এবং কর্তব্যপরায়ন নেতৃত্বের ফলে শুধু সমাজে নয় পুলিশ প্রশাসনে নিয়ে এসেছেন আমুল পরিবর্তন। তার এই রেখে যাওয়া অবদান যেন ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকে এজন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহবান জানায় বক্তারা। অনুষ্ঠানে মহানগর কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির পক্ষ থেকে বিদায়ী পুলিশ কমিশনারকে ক্রেস্ট ও উপহার সামগ্রী তুলে দেয়া হয়। এছাড়াও মহানগর পুলিশের দক্ষিন জোনের পক্ষ থেকে বিদায়ী উপহার স্বরুপ বাঁশ শিল্পে তৈরি লঞ্চ উপহার দেয়া হয়।